ঘরে বসে হারমোনিয়াম শিক্ষা ও ছোটদের হারমোনিয়াম শিক্ষা

ঘরে বসে হারমোনিয়াম শিক্ষা

সূচীপত্রঃঘরে বসে হারমোনিয়াম শিক্ষা-সঙ্গীত শিক্ষার প্রথম ধাপ হচ্ছে হারমোনিয়াম। এই হারমোনিয়াম এখন প্রত্যেকের ঘরে ঘরে শোভা পাই। আগে তেমন এই হারমোনিয়াম চর্চার চিত্র দেখা যেত না । কিন্তু অনলাইনের দুনিয়ায় বিশ্বের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে মানুষ এখন নিজের গানের ভিডিও ও গানের চর্চা সোশ্যাল মিডিয়ায় হরহামেসা দেখা যায়। সেই ক্ষেত্রে মানুষের মধ্যে অনুপ্রেরণা বৃদ্ধি পাচ্ছে । 

তাই অনলাইনে এখন মানুষ খুঁজে বেড়াই যে কিভাবে ঘরে বসে হারমোনিয়াম শিক্ষা নেওয়া যায় এবং সঙ্গীত শিল্পী হওয়া যায়। আমরাও তাই আজকে এই ঘরে বসে হারমোনিয়াম শিক্ষা নিয়ে কথা বলার জন্যে এসেছি এবং দিক নির্দেশনা দেওয়ার চেষ্টায় থাকবো ।

হারমোনিয়াম পরিচিতি


হারমোনিয়াম হচ্ছে একটি অতুলনীয় বাদ্যযন্ত্র যা দিয়ে মানুষ সঙ্গীত জীবনে প্রবেশ করার প্রথম ধাপ বলা যায় । এই জনপ্রিয় বাদ্যযন্ত্র হারমোনিয়াম বর্তমানে সমস্ত গানের জগতে দেখতে পাবেন । 

তবে এই হারমোনিয়াম ছাড়াও অনেক বাদ্যযন্ত্র আছে সঙ্গীত জীবনে। তারপর ও এই বাদ্যযন্ত্রটি এখন এত বেশি চর্চা হয় যে মানুষ হারমোনিয়াম নিয়ে নিজের প্রতিভা বিকাশ করছে ।
 
হারমোনিয়ামের পরিচিতি সম্পর্কে বলতে গেলে অনেক কিছুই বলা যায়। যদিও আপনারা অনেকে জানেন তারপরও আমরা সংক্ষিপ্ত আকারে বলার চেষ্টা করছি ।

হারমোনিয়ামের পাঁচটি পার্ট যথা, হাওয়ার পার্ট, বাঁশির পার্ট (রীট বক্স), হাতের ফিংগারিংয়ের কী (ঘাট), বাইরের পার্ট দুটি একটি বাইরের বক্স এবং আরেকটি হচ্ছে ভাদি পার্ট (যা দিয়ে হাওয়া পূর্ণ করা হয়)। এই ভাদি এক ভেলুর হয় আবার সাত ভেলুর ও হয়ে থাকে । 

এই পাঁচটি পার্ট দিয়ে হারমোনিয়াম তৈরী হয় এবং এই হারমোনিয়াম থেকে নির্গত শব্দ যা অতি সুমধুর। যা একজন মানুষকে সঠিকভাবে গান শিখতে অধিকতর সহোযোগিতা করে । 

হারমোনিয়াম স্কেল


হারমোনিয়াম শুধু বাজালে হয় না। এই যন্ত্রটির নির্দিষ্ট কিছু স্কেল রয়েছে যা দিয়ে আপনি নির্দিষ্ট সুর তুলার জন্যে এই স্কেলের অন্তরভুক্ত হয়ে সুর তুলতে হবে। হারমোনিয়ামের মধ্যে স্কেল রয়েছে ৭টি। যথা A B C D E F G  । 

এর সাথে আরো পাচঁটি স্কেল রয়েছে। যেগুলিকে বলার হয় শার্প। যেমন A# C# D# F# G# এই পাঁচটি ঘাট বা স্কেল কে বলা হয় অর্ধ ঘাট। বিশেষ করে কালো ঘাটগুলিকে বলে অর্ধ ঘাট বা শার্প। আর নিচের সাদা গুলির কে বলা হয় পূর্ণ ঘাট ।
 
A B C D E F G  বিশেষ করে এই সাতটি স্কেল গুলি হচ্ছে মূল । এইগুলিকে বেইজ করে আরো পাঁচটি স্কেল রয়েছে যেগুলি হচ্ছে A C D F G  এই স্কেল গুলির অর্ধ স্কেল। মোট হচ্ছে  ১২ স্কেল। 
এই স্কেল গুলি না চিনলে আপনি হারমোনিয়াম শিখতে পারবেন না। এইগুলি হলো বেসিক ধারণা। স্কেল গুলি চিনে রাখা বেশি জরুরি । 

হারমোনিয়াম স্কেল শিক্ষা


আমরা উপরের টপিকে বলেছি হারমোনিয়ামের স্কেল কয়টি। আবার একটু আমরা  পুনরায় বলছি। হারমোনিয়ামের স্কেল হচ্ছে ৭ টি । এই ৭ টি স্কেলের সাথে সংযুক্ত আরো পাঁচটি স্কেল রয়েছে যাকে অর্ধ ঘাট হিসেবে বা মাইনর বলে সম্ভোধন করে থাকে ।
 
ঘরে বসে হারমোনিয়াম শিক্ষা

সর্বমোট ১২ টি স্কেল রয়েছে একটি হারমোনিয়ামে। পৃথিবীর সমস্ত স্বর এবং সুর এর ১২ টি স্কেলের মধ্যে সীমাবদ্ধ। এই স্কেলের বাইরে আর কোন স্বর নেই। সুর হচ্ছে ৭টি । এই সাতটি সুরকে ৭টি স্কেল বলে । 

এই স্কেলগুলির সাথে সংযুক্ত সমস্ত বাদ্যযন্ত্র গুলিও তৈরী হয় এই স্কেলগুলি অনুসরণ করে। তাহলে এই বেসিক জ্ঞান টুকু না থাকলে আপনার সুর সম্পর্কে কখনো ধারণা পাবেন না ।


হারমোনিয়াম শিক্ষা স্বরলিপি


এতক্ষন হারমোনিয়ামের স্কেল শিক্ষা নিয়ে কথা হয়েছে। কারণ স্বরলিপি জানার আগে স্কেল সম্পর্কে ধারণা রাখতে হবে। আর তা না হলে আপনা কণ্ঠ কোন স্কেল থেকে নির্ধারণ না হলে হারমোনিয়াম শিক্ষা নেওয়া কঠিন হয়ে পড়বে ভবিষ্যতের জন্যে । 


এবার আসি হারমোনিয়াম শিক্ষা স্বরলিপি নিয়ে। হারমোনিয়ামে সাতটি শুদ্ধ স্বর দিয়ে সুর নিহিত আছে। তার সাথে আরো পাঁচটি স্বর আছে তারমধ্যে ৪ টি হলো কোমল স্বর একটি হলো কড়ি বা তীব্র স্বর। এই স্বর গুলিকে কিভাবে প্রকাশ করা হয় তা  নিচে দেওয়া হলো । 

হারমনিয়ামের স্বর পরিচিত 


আরোহঃ স্ রে গা মা পা ধা নি র্স   ( এই সপ্ত স্বর গুলি সব হলো শুদ্ধ )

অবরোহঃ  র্স  নি ধা পা মা গা রে স্ 


এই সাতটি স্বরের মধ্যে সা দুটি । কিন্তু এই দুটি সা কে একটি ধরা হয় । বাকি ছয়টা মাইল সাতটি স্বর দিয়ে স্বরলিপির তৈরি হয়েছে। এর সাতটির সাথে সংযুক্ত আরো পাঁচটি কোমল এবং কড়ি বা তীব্র স্বর রয়েছে। 


যথা ' রে ' শুদ্ধ স্বর কোমল স্বর কে ' ' দিয়ে প্রকাশ করা হয় । 

' গা ' শুদ্ধ স্বর কিন্তু কোমল স্বর কে ' জ্ঞা ' দিয়ে প্রকাশ করা হয় । 

' ধা ' শুদ্ধ স্বর কোমল স্বর কে ' দা ' দিয়ে প্রকাশ করা হয় ।

' নি ' শুদ্ধ স্বর কোমল স্বর কে ' ণি ' দিয়ে প্রকাশ করা হয় ।  

' মা ' শুদ্ধ স্বর কড়ি/তীব্র স্বর কে ' হ্মা ' দিয়ে প্রকাশ করা হয় । 


আমরা কিছু বিষয় বলার চেষ্টা করছি , ভাল করে যদি লক্ষ্য করেন তা হলে অতি সহজে বুজে যাবেন যে কোমল স্বর কোনটি আর শুদ্ধ স্বর কোনটি এবং কড়ি স্বর কোনটি । 


চারটি শুদ্ধ স্বরের আগের স্বর বা হারমোনিয়ামের ঘাট গুলি হচ্ছে কোমল স্বর। কিন্তু ‘ মা ’ স্বর এর ক্ষেত্রে একটু ব্যতিক্রম। ' মা ' স্বর পরের স্বর বা হারমোনিয়ামের ঘাটটি হচ্ছে কড়ি ' হ্মা ' । কারণ ' মা ' স্বরের আগে কোন স্বর নেই তাই ' মা ' স্বরের পরে বলে একে কড়ি ' হ্মা ' বলে । 

তিন সপ্তক সম্পর্কে ধারনা


এতক্ষন আমরা স্বর নিয়ে কথা বলেছি কিন্তু এবার আসি হারমোনিয়ামে কয়টি ঘাট এবং এই ঘাটগুলি কে কিভাবে নির্ণয় করা হয় এবং কি বিলে সম্বোধন করা হয় ।
আপনি যে স্কেল থেকে স্বরলিপি বাজাবেন সেই স্কেলের স্ থেকে নিচের সাতটি স্বরকে বলে উদারা সপ্তক ।

আপনি যে স্কেল থেকে স্বরলিপি বাজাবেন সেই স্কেলের স্ থেকে উপরের সাতটি অর্থাৎ ' র্স ' স্বরকে বলে মুদারা সপ্তক ।

আপনি যে স্কেল থেকে স্বরলিপি বাজাবেন সেই স্কেলের ' র্স ' থেকে উপরের সাতটি স্বরকে বলে তারা সপ্তক । 

গানের সুন্দর্য্য এবং গান অনুযায়ী বা স্বরলিপি চর্চা করার সময় এই তিন সপ্তকে আপনাকে গাইতে হবে তাই এই তিন সপ্তক সম্পর্কে ভাল করে জানা দরকার । কখনো কখনো আপনাকে উপরের নোটে গাইতে হবে সেটি হচ্ছে তারা সপ্তকে । 

আবার কখনো কখনো নিচের সপ্তকে গাইতে হবে উদারা সপ্তক । 
আবার কখনো কখনো শুধু মুদারা সপ্তকে গাইতে হবে । অর্থাৎ ফ্লেটে । 

হারমোনিয়াম শিক্ষা বই


হারমোনিয়াম শিক্ষা হলো এমন একটি বিদ্যা যা জ্ঞানের ঘর আলোকিত করার এক মাধ্যম। এখানে হারমোনিয়াম শিখা নই একটি বাদ্যযন্ত্র শিক্ষার মাধ্যমে অনেক যন্ত্র শিক্ষা আয়ত্ত্ব আনা । 

হারমোনিয়াম শিক্ষার বই বাজারে অনেক আছে। কিন্তু কিছু কিছু প্রসিদ্ব বই রয়েছে যা দিয়ে আপনি ১ বৎসর থেকে শুরু করে ৫ বছর পর্যন্ত শিক্ষা লাভ করার জন্যে সমস্ত শিক্ষা দেওয়া রয়েছে । 

আপনি যদি আমাদের হারমোনিয়াম শিক্ষা স্বরলিপি টপিকটা ভাল করে পড়ে থাকেন তাহলে " আরোহ-অবরোহ "  বইটি নিতে পারেন ।  শিক্ষক ছাড়াও আপনি এই বইটির মাধ্যমে কমপক্ষে ৫ বছরের শিক্ষা পেয়ে যাবেন ।
 
“ আরোহ-অবরোহ “ বইটি লেখক হচ্ছে ওস্তাদ নিরোদ বরন বড়ুয়া স্যার। এই বইটি খুবই প্ৰয়োজনীয় বলে হারমোনিয়াম শিক্ষার জন্যে আমি মনে করি। প্রথম বছর থেকে খুবই সহজে আয়ত্ব করার মত বিদ্যা এই বইয়ে দেওয়া আছে । 

একজন নতুন যে কোন হারমোনিয়াম শিক্ষার্থী খুব সহজে এই বইয়ের মাধ্যমে হারমোনিয়ামেরে স্বরলিপি থেকে শুরু করে রাগ-রাগিনী, খেয়াল, লক্ষণ গীত ,স্বরমালিকা এবং তান । 

এই সব কিছু একটি মাত্র বইয়ে আপনি পেয়ে যাবেন এবং এটি একজন হারমোনিয়াম শিক্ষার্থীর জন্যে আদর্শ। আবার এটি ছাড়াও আরো রয়েছে জগদানন্দ বড়ুয়া স্যারের “ সংগীত মুকুল ” । 


আরও পড়তে পারেনঃ ম্যাচুরিটি হওয়ার উপায় 

ছোটদের হারমোনিয়াম শিক্ষা


ছোটদের হারমোনিয়াম শিক্ষা এখন ব্যাপক হরে বেড়েছে। বাবা মায়েরা বিশেষ করে প্রাইমারিতে তার ছেলে মেয়ে যেন গান দিতে পারে বাৎসরিক অনুষ্টানে সে হিসেবে এখন ছোটদের হারমোনিয়াম শিক্ষা দিয়ে থাকেন ।  

আবার অনেকে তার ছোট ছেলে মেয়ে ছোট জীবন থেকেই হারমোনিয়াম শিক্ষার মাধ্যমে সন্তানকে গানের জগতে প্রবেশ উন্নত করার জন্যে হারমোনিয়াম শিক্ষা করার জন্যে লাগিয়ে রাখেন । 

ঘরে বসে হারমোনিয়াম শিক্ষা

ছোটদের হারমোনিয়াম শিক্ষা দেওয়ার সময় লক্ষ্য রাখবেন। হারমোনিয়াম আগে তাকে মনের মত করে বাজাতে দিবেন। এইভাবে প্রতিদিন বাজাতে বাজাতে তার ফিঙ্গারিং হয়ে যাচ্ছে ধীরে ধীরে। খুবই যত্ন করে ছোটদের হারমোনিয়াম শিক্ষা দিতে হয় । 

ছোটদের হারমোনিয়াম ও সঙ্গীত শিক্ষা বইটি কিনতে পারেন গোলাম মোস্তফা স্যারের। এই বইটি খুবই প্রসিদ্ধ আমাদের দেশের জন্যে। তাছাড়াও ছোটদের গান শিখানোর সময় খুবই চর্চা করার জন্যে আগ্রহী করে তুলতে হবে । 

মনে রাখবেন হারমোনিয়াম শিক্ষা হচ্ছে সম্পূর্ণ প্রেক্টিসের উপর নির্ভরশীল। যে যত বেশি প্রেকটিস (চর্চা) করবেন সে ততবেশি হারমোনিয়াম শিখবেন অনায়াসে এবং দিন দিন খুবই দ্রুত উন্নতি করবেন ।

হারমোনিয়াম শিক্ষার ক্ষেত্রে সঙ্গীত শিক্ষকের গুরুত্ব 


হারমোনিয়াম তো একটি যন্ত্র মাত্র। কিন্তু এই যন্ত্রের ভিতর কত রহস্য লুকিয়ে রয়েছে সেটা শুধু একজন শিক্ষক জানেন। আমরা যতই বলি না কেন ঘরে বসে হারমোনিয়াম শিক্ষা করা যায় । 

তারপর ও হারমোনিয়াম শিক্ষার ক্ষেত্রে একজন সঙ্গীত শিক্ষক আপনার জীবনের জন্যে বেশি প্রয়োজন। কারণ এই হারমোনিয়াম শিক্ষা এবং সঙ্গীত শিক্ষা হলো গুরুমুখী বিদ্যা। গুরু ছাড়া এর সম্পর্কে ভাল করে জ্ঞান অর্জন অপূর্ণ থেকে যায় ।  

হারমোনিয়াম শিক্ষার ক্ষেত্রে সঙ্গীত শিক্ষক আপনাকে যা দেখিয়ে দেবে আপনাকে সেই বিদ্যা নিজে অর্জন করতে হলে অনেক কাট-খড় পোড়াতে হবে। তাই হারমোনিয়াম শিক্ষার ক্ষেত্রে সঙ্গীত শিক্ষকের গুরুত্ব অপরিসীম । 

রে বসে হারমোনিয়াম শিক্ষা সম্পর্কে লেখকের শেষ কথা


ঘরে বসে হারমোনিয়াম শিক্ষা এই কথার উপর ভিত্তি করে আমরা অনেক কিছুই বলেছি এই নিবন্ধে । আশা করি আপনাদের মনের জট খুলে যাবে যারা হারমোনিয়াম নিয়ে জীবন সাজাতে চেয়েছেন তাদের ক্ষেত্রে ।

হারমোনিয়াম শিখলে খুব সহজে গান তুলতে পারবেন, গাইতে পারবেন এবং স্টেইজে হারমোনিয়াম বাজাতে পারবেন আমাদের উপরোক্ত তথ্য ভাল করে ফলো করলে । 


এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

সবারজন্যে.কম এর নীতিমালা মেনে এ কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ১