এফিলিয়েট মার্কেটিং কেন করবো এবং কেন এই সেক্টর খুব জনপ্রিয়

এফিলিয়েট মার্কেটিং কেন করবো এই বিষয়ে সুদূরপ্রসারী চিন্তা থাকে উন্নত চেতনার মানুষের মধ্যে। তাই অনেকে এই এফিলিয়েট মার্কেটিং সম্পর্কে জানতে চায়। বুজতে চায়। কারণ এফিলিয়েট মার্কেটিং দিন দিন খুব জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। 

মার্কেটিং এর মঞ্চে এই এফিলিয়েট মার্কেটিং এর বাজার এখন খুব উন্নত। তাই মানুষের মধ্যে এই প্রশ্ন বার বার আসে যে এফিলিয়েট মার্কেটিং কেন করবো ?


এফিলিয়েট মার্কেটিং কেন করবো

আজকে তাই এই প্রসঙ্গে আমরা আলোচনা করবো এফিলিয়েট মার্কেটিং কি ?এফিলিয়েট মার্কেটিং কেন করবো? এফিলিয়েট মার্কেটিং এর ভবিষ্যৎ কি ?কি ভাবে এই সেক্টরে উন্নতি করা যায় ।

মার্কেটিং কি ?


এফিলিয়েট মার্কেটিং সম্পর্কে জানতে হলে আপনার আগে জানতে হবে মার্কেটিং মানে কি ? তাহলে আসল কথায় আশা যাক। মার্কেটিং কি?মার্কেটিং মানে হলো প্রচার। আপনার প্রোডাক্ট বা আপনার ব্যবসা যত বেশি আপনি প্রচার করতে পারবেন বা মার্কেটিং করতে পারবেন তত বেশি আপনার ব্যবসা উন্নত হবে। যার প্রচার যত বেশি, তত উন্নতি দিন দিন তার বেশি। কারণ কথায় আছে প্রচারেই প্রসার। 

এফিলিয়েট মার্কেটিং কি ?


এফিলিয়েট মার্কেটিং হলো কোনো প্রোডাক্ট কে প্রচার করার মাধ্যমে যে কমিশন অর্জন করে তাকে বলে এফিলিয়েট মার্কেটিং। 


এখন ধরুন আপনার বন্ধুর একটি ব্যবসা প্রতিষ্টান রয়েছে। তার ব্যবসা দিন দিন উন্নতি হওয়ার দরুন সে নিজে ব্যবসা সামলাতে পারছেনা। কিন্তু আপনাকে অফার করলেন যে তার ব্যবসায়িক প্রোডাক্ট যদি আপনি বিক্রি করে দেন তাহলে আপনাকে একটি প্রোডাক্ট হিসেবে কমিশন প্রদান করবেন। 


আপনি ও সেই হিসেবে কাজ করে আপনার বন্দুর প্রোডাক্ট  বিক্রি করে দিলেন। আপনি একটা মোটা অংকের টাকা পেলেন। টিক এই পদ্বতিকে অনলাইন বলে এফিলিয়েট মার্কেটিং। 


সারা বিশ্বে কয়েক লক্ষের উপরে কোম্পানি রয়েছে। এবং দিন দিন এই ব্যবসা বৃদ্বি পাচ্ছে। কিন্তু সেই কোম্পানিগুলি তাদের প্রোডাক্ট প্রচার এবং ব্যবসা সম্পর্কে উন্নতি কল্পে এফিলিয়েট মার্কেটারদের খুঁজে থাকেন সবসময়। 


এফিলিয়েট মার্কেটাররাও ভিবিন্ন মাধ্যমে তাদের প্রোডাক্ট প্রচার করে যেমন ওয়েবসাইট ,ফেসবুজ ,ইউটিউব লিঙ্কডিন আরো অনেক মাধ্যমে এই এফিলিয়েট মার্কেটিং করে থাকেন।  

অনলাইন এফিলিয়েট মার্কেটাররা কিভাবে মার্কেটিং করে


অনলাইন এফিলিয়েট মার্কেটাররা তাদের নিজের ওয়েবসাইটে যেকোন প্রতিস্টানের একটা প্রোডাক্ট সম্পর্কে ভাল করে লেখালেখি করবেন। বা ভাল মন্দ তুলনা করবেন। আর এই তুলনার প্রেক্ষিতে কেউ ওই প্রোডাক্ট সম্পর্কে ভালো করে পড়াশোনা করে বা ভাল মন্দ বিচার করে এবং সেই প্রোডাক্ট এর উপর ক্লিক করে তারা ক্রয় করে। এইভাবে তারা মার্কেটিং করে থাকেন। 


তবে অনেক পদ্বতিতে মার্কেটাররা মার্কেটিং করে থাকেন। যেমন ব্যক্তিগত ওয়েবসাইটে লেখালেখি করে। আবার অনেকে ফেইসবুক পেইজের মাধ্যমে , ,ইউটিউব ভিডিও তৈরী করে ভিডিও মার্কেটিং করে থাকেন  ,টুইটার এবং লিঙ্কডিন এর মাধ্যমে এই এফিলিয়েট মার্কেটিং করা যায়। বা করে থাকে। 

এফিলিয়েট মার্কেটিং কেন করবো ?


এফিলিয়েট মার্কেটিং কেন করবো ? কারণ এফিলিয়েট মার্কেটিং এখন মার্কেটিং জগতের জন্যে এক নাম্বার। অনেক মাধ্যমে মানুষ তাদের প্রোডাক্ট কে প্রচার করে। কিন্তু এফিলিয়েট মার্কেটিং এর মাধ্যমে প্রোডাক্ট এর প্রচার একটু বেশি হয়। এবং তাতে কোম্পানি এবং মার্কেটারের ও খুব ভাল একটা ইনকাম হয়ে থাকে ।


এফিলিয়েট মার্কেটিং এর ভবিষ্যৎ দিন দিন উন্নতি লাভ করছে। একজন মার্কেটার  এই সেক্টরে কমপক্ষে ১ লক্ষ টাকা থেকে আরো বেশি আয় করে থাকে। দিন যত যায় তত বেশি আয় বৃদ্বি পায়। এবং এই মার্কেটাররা অনেক পদ্বতিতে এফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয়  করে থাকেন। 

বর্তমান বিশ্বের মানুষ প্রায় ৯০% মানুষ অনলাইনের ছোঁয়া তে দিন কাটান। বিভিন্ন রকম সোশ্যাল মিডিয়ায় থাকেন। বিশ্বের সমস্ত ব্যবসা গুলিও এখন অনলাইন ভিত্তিক হয়ে যাচ্ছে। মানুষের কোনো প্রোডাক্ট সম্পর্কে জানার থাকলে সেটা গুগল করে জানতে চায়। 


অর্থাৎ মানুষের অবচেতন মনে হলেও অনলাইন এ বেশি সময় ব্যয় করেন। তাই সেই সুবাদে এফিলিয়েট মার্কেটিং ও দিন দিন জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। এই কারণে এফিলিয়েট মার্কেটিং এর মাধ্যমে নিজের ক্যারিয়ার দাঁড় করানো উত্তম বলে মনে করি ।


আরও পড়ুনঃ 

অনলাইনে কিভাবে ইনকাম করা যায়। আত্মনির্ভরশীল হওয়া যায়

এফিলিয়েট মার্কেটিং এর মেইন থিম কি


এফিলিয়েট মার্কেটিংয়ের মেইন থিম হলো একটা প্রোডাক্ট সম্পর্কে ভালো ভাবে খুঁজ খবর নিয়ে সেই সম্পর্কে ভালো মন্দ জেনে সেই প্রোডাক্ট টি ক্রয় করা। এবং সেই ক্রয় কৃত অর্থ থেকে আপনার জন্যে একটা কমিশন বরাদ্দের মাধ্যমে আপনি স্বাবলম্বী হওয়া ।


এফিলিয়েট মার্কেটিং কেন করবো


তাই এই প্রোডাক্ট সম্পর্কে লেখকরা বিশেষ করে লিখে থাকেন। এবং সেই লিখার মাধ্যমে প্রোডাক্ট এর মধ্যে কিংবা লেখার ভিতরে একটি কোম্পানির এফিলিয়েট লিংক যুক্ত করে দিয়ে সেটা প্রচার করা।  সেই প্রচারকৃত প্রডাক্ট থেকে তার লিংক ধরে যদি কোনো ব্যাক্তি সেই প্রোডাকটি ক্রয় করে তাহলে কোম্পণী তাকে একটি কমিশন দিয়ে থাকে। আর এইটাই হলো এফিলিয়েট মার্কেটিং এর মেইন থিম। 

এফিলিয়েট মার্কেটিং কিভাবে শুরু করবো - সফলভাবে এফিলিয়েট মার্কেটিং করতে যা যা আপনার করণীয় – অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করার জন্য কোন বিষয়ে জানা প্রয়োজন ?


এই এফিলিয়েট মার্কেটিং সম্পর্কে আমাদের পথ চলা আরেকটু গভীর হলো। অনেকটা প্রশ্ন এখানে এসে গেছে। চলুন তাহলে, আপনার প্রথমে এফিলিয়েট মার্কেটিং শুরু করার জন্যে প্রথমে আপনাকে একটা সুন্দর ভাবে প্লেন সাজাতে হবে । 


মার্কেটে অনেক বিষয় নিয়ে আপনি কাজ করতে পারবেন যেমন বেবি নিশ নিয়ে,লেডিস নিয়ে কিংবা জেন্স নিয়ে অথবা ডিজিটাল প্রোডাক্ট অথবা ফিজিকেল প্রোডাক্ট অনেক কিছু নিয়ে করা যায়। এর জন্যে একটি সুন্দর প্লেন আপনার সাজাতে হবে। প্লেন অনুযায়ী আপনাকে এগুতে হবে।  কারণ সুন্দর পরিকল্পনার মাধ্যমে মানুষ এগিয়ে যায়। 


এবার একটি ওয়েবসাইট লাগবে। যার জন্যে আপনার থেকে একটি ডোমেইন এবং হোস্টিং নিতে হবে। যেকোন ভালো মানের ডোমেইন হোস্টিং প্রোভাইডারের কাজ থেকে এই ডোমেইন হোস্টিং নিতে পারেন।  এবার ওয়েবসাইট টি আপনি একজন ডেভেলপার কে দিয়ে থিম নির্বচনের মাধ্যমে সাজাবেন। যেখানে আপনি সুন্দরভাবে প্রোডাক্ট গুলি নিয়ে লিখেবেন ।


এফিলিয়েট মার্কেটিং কেন করবো

এবার আসি যেই ওয়েবসাইট এ আপনি লিখবেন সেই লেখাগুলিকে আপনার ভাল ভাবে এস ই ও করতে হবে। অর্থাৎ আপনার পোস্ট গুলি যাতে মানুষ পায় তারজন্যে সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন করতে হবে।


খুব সহজে যাতে মানুষ আপনার লিখা গুলি খুঁজে পেতে পারে। আর এই সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন (এস ই ও ) করার মাধ্যমে যাতে গুগল এর প্রথম পেইজে আপনার পোস্ট গুলি খুঁজে পায়। এবং এতে আপনার ভিজিটর দিন দিন বৃদ্বি পাবে এবং আপনার ইনকাম বেশি হবে। 

এফিলিয়েট মার্কেটিং করে কত টাকা আয় করা যায়


এফিলিয়েট মার্কেটিং করে কত টাকা আয় করা যায় সেটা হলো সম্পূর্ণ আপনার দক্ষতার উপর ভর করবে। একজন সফল মার্কেটার নূন্যতম ২৫০০০ হাজার টাকা থেকে শুরু করে ৩ অথবা ৪ লাখ থাকা পর্যন্ত আয় করে থাকেন। আপনি যত বেশি দক্ষ হবেন তত বেশি আপনার আয় বৃদ্বি পাবে। 


একজন সফল মার্কেটের হতে আপনাকে কমপক্ষে ১ হতে ২ বছর পর্যন্ত লেগে থাকতে হবে। এর অনেক কম সময় দিয়ে ও মানুষ উপার্জন করছে সেটি সম্পূর্ন তার নিজের মেধাকে কাজে লাগিয়ে সে আয় করছে। আপনি যদি ভালো কন্টেন্ট রাইটার হন ।


তাহলে আপনার অনলাইন এফিলিয়েট মার্কেটিং করে খুব কম সময়ের মধ্যে টাকা আয় করতে পারবেন। আর এফিলিয়েট মার্কেটাররা শুধু এক পথ দিয়ে ইনকাম করে না। আরো অনেক মাধ্যম দিয়ে তারা অনলাইন থেকে ইনকাম করে থাকে। তাই লেগে থাকুন সাফল্য একদিন আসবেই । 


এফিলিয়েট মার্কেটিং কেন করবো এই নিয়ে শেষ কথা


এফিলিয়েট মার্কেটিং কেন করবো এই কথার যথেষ্ট উদাহরণ আমরা এই আর্টিকেলে দিয়েছি। তবে এফিলিয়েট মার্কেটিং দিন দিন অনেক উন্নতি করছে। কারণ সহযোদ্বা ছাড়া যেমন যুদ্বে জয় লাভ সম্ভব নই ,ঠিক তেমন ভাবে কোনো ব্যবসা এফিলিয়েট মার্কেটার ছাড়া সম্ভব নই। 


তাই এফিলিয়েট মার্কেটিং যোগ দিন। নিজেকে স্বাবলম্বী করুন। দেশের দশের উপকারে নিজেকে উৎস্বর্গ করুন এই শুভকামনায় আজকের জন্যে বিদায় নিচ্ছি ভালো থাকবেন। ভালো রাখবেন ।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

সবারজন্যে.কম এর নীতিমালা মেনে এ কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ১