সক্রেটিস প্লেটো এরিস্টটল আলেকজান্ডার এবং সক্রেটিস কেন বিষ পান করেছিলেন

সক্রেটিস প্লেটো এরিস্টটল আলেকজান্ডার

সক্রেটিস প্লেটো এরিস্টটল আলেকজান্ডার - যাদের অবদানে আমাদের এই বিশ্ব পেয়েছে এক অপরূপ দর্শন, তাদের অবদানের কথা ভুলে গেলে পরবর্তী জেনারেশন আর কখনো উন্নত জীবনের চিন্তা করতেই পারবেনা । আজকে তেমন কিছু বিজ্ঞানীদের কথা আমরা আলোচনা করবো । যা আপনার জন্যে, আমার জন্যে তথা সারা বিশ্বের উন্নতির জন্যে নিজেকে উৎস্বর্গ করেছেন ।

সুচীপত্রঃতৎমধ্যে সক্রেটিস প্লেটো এরিস্টটল আলেকজান্ডার এদের কিছু জীবনী এবং কার্যকলাপ আমরা তুলে ধরার চেষ্টা করবো সাথে প্লেটো এবং এরিস্টটল কোন যুগের দার্শনিক, এরিস্টটল এর বিখ্যাত গ্রন্থের নাম কি, এরিস্টটল এর গুরু কে ছিলেন, সক্রেটিস কেন বিষ পান করেছিলেন, সক্রেটিস প্লেটো এরিস্টটল কে কার শিক্ষক ছিলেন এই সব অজানা তথ্য নিয়ে আলোচনা করার জন্যে মগ্ন থাকবো। 

সক্রেটিস কে ছিলেন, সক্রেটিস এর দর্শন, সক্রেটিস এর মৃত্যু কিভাবে কত সালে 

সক্রেটিস কে ছিলেন সেটা আমাদের গভীর শ্রদ্বাভরে স্মরণ করতে হয় । কারণ তার চিন্তা চেতনার এত উন্নত দর্শন পাশ্চাত্য দেশে এর আগে কেউ দেয় নি । সক্রেটিস এর মত সামাজিক মূল্যবোধ তৈরী করার দর্শন আর কোথায় খ্রিষ্টপূর্বে পাওয়া যায়নি ।

সক্রেটিস কে ছিলেন

সক্রেটিস ছিলেন প্রাচীন গ্রীসের, এথেন্স নগরীতে জন্ম নেওয়া একজন মহান ব্যক্তি । যিনি পাশ্চাত্য ইতিহাসের মহান দার্শনিক ।  তার বাবার নাম ছিলেন সফ্রোনিস্কাস এবং মায়ের নাম ছিলেন ফিনারিটি । বাবা পেশায় একজন স্থপতি ছিলেন নকশা নির্মাণ বা স্থাপনা নির্মাণের কাজ করতেন  এবং মা ছিলেন তখনকার দিনের ধাত্রী ।

সক্রেটিসের স্ত্রীর নাম ছিলেন জ্যানথিপি । সক্রেটিস এর জন্ম ৪৭০ খৃস্টপূর্বাব্দে । এই সব কিছু প্লেটোর ভাষ্যমতে আমরা পেয়ে থাকি। এও পেয়ে থাকি যে সক্রেটিসের ৩ টি সন্তান ছিল। 

সক্রেটিস এর দর্শন

সক্রেটিস এর দর্শন সম্পর্কে বিশেষভাবে তেমন কিছু পাওয়া যায় নি । তবে সক্রেটিস এর দর্শনের আলোচনা আমরা পেয়ে থাকি প্লেটোর এবং জেনোফেনোর ডায়ালগগুলির মধ্যে এবং এরিষ্টফেনিসের নাটকগুলোর মধ্যে । 


তিনি সংসারের অভাব ভুলে থাকার জন্যে দার্শনিক তত্ত্বে ডুবে থাকতেন । সত্য ও জ্ঞানের প্রতি অবিচল থাকায় তিনি দর্শনের পরম রহস্য উন্মোচন করেছিলেন। তিনি অর্থের বিনিময়ে বিদ্যা দান করারকে সমর্থন করতেন না পরন্তু খুব ঘৃণা করতেন ।


দর্শন শাস্ত্রে মহান হাওয়াই এই কথা বলতেন আমি নিজেকে অন্যের জন্যে বিলিয়ে দেওয়ার জন্যে এসেছি । এতে তিনি পরম শান্তি উপভোগ করতেন । তার মুখের ভাষ্য সম্পর্কে প্লেটো বলেছিলেন তিনি একটা কথায় গভীর বিশ্বাসের সাথে বলতেন যে, আমি একটি বিষয় জানি সত্য করে সেটি হচ্ছে "আমি কিছুই জানিনা" । কারণ এই বিশ্বে জানার কোন শেষ নেই । তাই আমি জ্ঞানী নই আমি কেবল মাত্র জ্ঞানের অনুরাগী । 


তার দর্শন হলো দ্বান্দ্বিক দর্শন । তিনি প্রতিপক্ষের সমর্থন মেনে তাকে প্রশ্নের জালে আটকিয়ে দিতেন এবং প্রশ্নের পর প্রশ্ন করে তার কাছ থেকে সত্যটা বের করে আনতেন । বিপক্ষের মন থেকে সমস্ত দ্বন্দ্বের অবসান ঘটাতেন । তিনি দর্শনের নিগূঢ় রহস্য বেশি আলোচনা করতেন না সবার সাথে কিন্তু সমাজ দর্শনের প্রতি বেশি আগ্রহ দেখাতেন । 


আমরা মানুষ হিসেবে কিভাবে চলতে হবে এবং মানুষের কর্তব্য কি হতে হয় সেই বিষয়ে বিশেষ নজর দিতেন । সক্রেটিস এর দর্শনের মধ্যে জ্ঞানী হাওয়া ছাড়াও মানুষের মধ্যে জ্ঞান সঞ্চয় হলে যে মানুষ অন্যায় করতে পারে না তা বুজিয়ে দিয়েছিলেন । এটা অন্যতম একটা প্রচেষ্টা ছিলেন । 


সক্রেটিস পাশ্চত্য দেশে আত্মা সম্পর্কে প্রথম ধারণা দিয়েছিলেন এবং মানুষকে বোধোগময়তায় এনেছেন এই আত্মা সম্পর্কে । আত্মা কে সঠিক লক্ষ্যে পরিচালনা করার কথা তিনিই সর্বপ্রথম প্রবর্তন করেছিলেন ।

আরও পড়ুনঃ কানাডা ভিসা ফি ফ্রম বাংলাদেশ

সক্রেটিস কেন বিষ পান করেছিলেন

বিশ্বে যত বড় বড় দার্শনিক ছিলেন তার মধ্যে সক্রেটিস অন্যতম । তাকে চিনে না এবং জানে না এমন কোন দার্শনিক নেই । তিনিই এই দেহের মাঝে আত্মা সম্পর্কে ধারণা দিয়েছিলেন । 


কিন্তু এই নশ্বর দেহ ছেড়ে তাকে চলে যেতে হয়েছিল তবু ও তিনি সর্বজনে এখনো বেঁচে আছে বিশেষ করে জ্ঞানীদের হৃদয়ে । সক্রেটিস এর মৃত্যু হয়েছিল হেমলক বিষ পানের মাধ্যমে। এই বিষয়ে একটু আলোকপাত করি চলুন ।

সক্রেটিস প্লেটো এরিস্টটল আলেকজান্ডার

সক্রেটিস এর মৃত্য কিভাবে হয়েছিল, তখনকার দিনের এথেন্সে যে দেবতাদের মান্য করা হতো তা নিয়ে তিনি দ্বিমত ছিলেন । যেহেতু সক্রেটিস একজন দার্শনিক এবং আত্মা সম্পর্কে প্রগাঢ় জ্ঞান রয়েছে সেহেতু তিনি সমস্ত মানুষ এবং যুবসমাজের মধ্যে এই আত্মা দর্শন সম্পর্কে আলোচনা করতেন । 


এই বিষয়গুলি এথেন্সের অন্যতম রাজনীতিবিদ আনুতুস এর মনে বিভিন্ন ভাবে সন্দেহের জন্ম দেয় যা শেষে সক্রেটিস এর বিপক্ষে গিয়ে বিচার কার্জ পর্যন্ত হয়ে চলে যায় । অনুতুসের অভিযোগ ছিল এই যে, সক্রেটিস যে দর্শন যুব সমাজের মধ্যে বিলিয়ে দিচ্ছেন তা কিন্তু বর্তমান রাষ্ট্রস্বীকৃত দেবতাদের বিরোধী হিসেবে কাজ করছেন । 


এই অভিযোগ দীর্ঘদিন ধরে আলোচনা সমালোচনার মাধ্যেম তৎকালীন প্রাচীন গ্রিসের এথেন্সে ৫০১ জন বিচারকের মাধ্যমে বিচার হয় । কারণ তখন কোন উকিল ছিল না বা বিচার ব্যবস্থা উন্নত হয় নি । তাই বাদী বিবাদী উভয়ের কথার উপর ভিত্তি করে বিচার কার্য সম্পাদন হত । 


এক্ষেত্রে সংখ্যাগরিষ্টতার উপর বেশি নজর দিত। তাই সেক্ষেত্রে সক্রেটিস কেবলমাত্র ষাটজন বিচারকের আধিক্যে তাকে দন্ড দেওয়া হয় । তখনকার দিনে যে কেউ নিজে চাইলে লঘু দণ্ডের জন্যে আবেদন করতে পারতেন । 


তার প্রশ্নবাণ রাষ্ট্রবিরোধী হয়ে দাঁড়িয়েছিলেন এবং তখনকার দিনে সক্রেটিস এর বিরোধী কথাগুলির যুক্তি খণ্ডানোর জন্যে কোন যুক্তিকতা ছিলোনা আইনুযায়ী । কারণ তিনি মুক্ত মনের মানুষ ছিলেন।  তিনি মনে করতেন রাষ্টীয় শাসনের বাইরে গিয়ে আত্মার অনুশীলণ অনুযায়ী চলায় শ্রেয় বলে ধরে নিতেন। 


তারপর ও সক্রেটিস ত্রিশ দিন পর্যন্ত সময় দেওয়া নেয় দন্ড শেষ করার জন্যে । কিন্তু এর ভিতর বন্দিশালা থেকে  পালিয়ে যাওয়ার ব্যবস্থা করেছেন । তবু তিনি পালিয়ে না গিয়ে হেমলক  বিষ পান করে মৃত্যু বরন করেন । মৃত্যুর সময় তার বয়স সত্ত্বর বছর হয়েছিলেন বলে পাওয়া যায় ।


বিশেষ বার্তা হচ্ছে সক্রেটিস এর মৃত্যু কার্যকর করার ২৪১৫ বছর পর গ্রীসের একটি আদালত বলেন যে সক্রেটিস নির্দোষ ছিলেন । এরপর নিউইয়র্কের এক আদালতে ২০১৬ সালে সক্রেটিস কে নির্দোষ বলে প্রামানিত করে রায় ঘোষনা করেন ।  

আরও জানুনঃ জোঁকের তেলের উপকারিতা

সক্রেটিস প্লেটো এরিস্টটল আলেকজান্ডার ও থিওফ্রাস্টাস কে কার শিক্ষক ছিলেন

সক্রেটিস প্লেটো এরিস্টটল এখানে তিন জনের কথা বলা হয়েছে । এই তিনজনেই হচ্ছে দর্শন বিদ্যার তিন দিকপাল । মানুষ বেঁচে থাকে তার কর্মে । ঠিক একই প্রকার এতক্ষন আমরা সক্রেটিস এর কথা বলেছি ।  


সক্রেটিস প্লেটো এরিস্টটল আলেকজান্ডার এরা সবাই তাদের কর্মে বেঁচে আছে যুগে যুগে । আমরা ধীরে ধীরে সক্রেটিস, প্লেটো, এরিস্টটল ও আলেকজান্ডার এদের সবার কথা বলব । 


কিন্তু যে কথা জানতে এসেছি সক্রেটিস প্লেটো কে কার শিক্ষক ছিলেন ? প্লেটো ছিলেন  সক্রেটিস এর ছাত্র । সক্রেটিস ছিলেন প্লেটোর শিক্ষক আবার এরিস্টটল ছিলেন প্লেটোর ছাত্র মানে প্লেটো এরিস্টটলের শিক্ষক।


আবার এরিস্টটলের ছাত্র হচ্ছে দুই জন । একজন হচ্ছে আলেকজান্ডার এবং আরেকজন হচ্ছে থিওফ্রাস্টাস । এই শিক্ষকদের প্রতি সারাবিশ্ব মাথা নত করেন কারণ এরা সারাবিশ্ববাসীকে দর্শন বিদ্যায় যা দিয়ে গেছেন তা পৃথিবীর সমস্ত বিশ্ববিদ্যালয় গুলিতে রিসার্চ হয় ।  


সক্রেটিস, প্লেটো, এরিস্টটল, আলেকজান্ডার ও থিওফ্রাস্টাস এরা কিন্তু কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়েন নি। শুধু নিজের চিন্তা চেতনার মাধ্যমে মানুষকে অমৃত শিক্ষা দিয়ে গেছে । 

প্লেটো এবং এরিস্টটল কোন যুগের দার্শনিক

প্লেটো এবং এরিস্টটল ছিলেন প্রাচীন গ্রীস দার্শনিক । সেক্ষেত্রে প্লেটো এবং এরিস্টটল হলো প্রাচীন যুগের দার্শনিক । প্লেটো প্রাচীন গ্রীসের এথেন্সে জন্মগ্রহণ করলেও আধুনিক বিশেষজ্ঞরা প্রাচীন গ্রীসের তথ্যসূত্র থেকে এই পেয়েছেন তিনি ৪২৭ বা ৪২৮ খ্রীষ্ঠপূর্বাব্দের কোন একসময়ে জন্মলাভ করেছিলেন । 


সক্রেটিস প্লেটো এরিস্টটল আলেকজান্ডার

প্রাচীন গ্রীস দার্শনিকদের মধ্যে এই তিনজন কে দর্শন শাস্ত্রের জনক বলা হয় । যথা সক্রেটিস প্লেটো এবং এরিস্টটল । এরিস্টটল ছিলেন একাধারে দার্শনিক ও বিজ্ঞানী । এরিস্টটল ছিলেন প্লেটোর ছাত্র । 


তখনকার দিনে মেসিডোনিয়ার রাজা দ্বিতীয় ফিলিপ তার ১৩ বছরের পুত্র আলেকজান্ডারের শিক্ষকতা করার জন্যে এরিস্টটল কে আমন্ত্রণ জানালে তিনি তা গ্রহণ করেন । এরপর আলেকজান্ডারকে মনের মত করে শিক্ষা প্রদান করে জগতে অক্ষয় হিসেবে গঠন করেছিলেন ।

এরিস্টটল এর বিখ্যাত গ্রন্থের নাম কি

লাইসিয়াম নামের বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করার পর তিনি সমাজ, রাষ্ট্র, শাসনব্যবস্থা ও নৈতিকতার জন্যে গ্রন্থ লিখেছেন তার নাম হচ্ছে পলিটিকস । এই গ্রন্থটি তিনি লিখেন ৫০ বছর পর যখন বিদ্যালয়টি প্রতিষ্টা করেছিলেন । তারপর এই গ্রন্থটি পৃথিবীর প্রথম একাডেমিক ভাবে সীকৃত ।

সক্রেটিস প্লেটো এরিস্টটল আলেকজান্ডার এদের নামে শেষ কথা 

প্রাচীন গ্রীসের প্রথম দর্শন শাস্ত্রের প্রবর্তক হলেন সক্রেটিস । যদিও সক্রেটিস এর কোন নিজস্ব লিখিত ভাষ্য নেই। কিন্তু আমরা তার শিষ্য প্লেটোর ডায়ালগ গুলির মধ্যে পেয়ে থাকি । গ্রীসের এই মনীষীদের মধ্যে প্লেটো এবং তার শিষ্য আলেকজান্ডারের কথা সারা জীবন মনে রাখবে বিশ্ববাসী। তাদের এই অবদান মানুষকে এক অনন্য শক্তি যোগাবে এই প্রত্যাশায় । ভাল থাকবেন । নিজে নিজের মত করে চিন্তা করবেন ।


অনবরত জিজ্ঞাসা ( FAQ )


এরিস্টটল এর গুরু কে ছিলেন ?
প্লেটো হলো এরিস্টটল এর গুরু অর্থাৎ এরিস্টটল ছিলেন প্লেটোর শিষ্য।  

প্লেটোর প্রকৃত নাম কি এবং কোথায় জন্ম গ্রহণ করেন ?
প্লেটোর প্রকৃত নাম হচ্ছে অ্যারিস্টোক্লিস এবং তিনি প্রাচীন গ্রীসের এথেন্সে জন্ম গ্রহণ করেছিলেন ।

সক্রেটিস প্লেটো এরিস্টটল আলেকজান্ডার এদের সূত্র কি ?

সক্রেটিস ছিলেন প্লেটোর গুরু বা শিক্ষক আবার প্লেটো ছিলেন এরিস্টটলের শিক্ষক এবং এরিস্টটল ছিলেন আলেকজান্ডারের শিক্ষক । 

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

সবারজন্যে.কম এর নীতিমালা মেনে এ কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ১