কুয়েত হোটেল ভিসা বেতন কত এবং কুয়েত ক্লিনার ভিসা বেতন ২০২৪

কুয়েত হোটেল ভিসা বেতন কত
কুয়েত হোটেল ভিসা বেতন কত | অর্থ সকল সুখের মূল । আমাদের জীবনের ভাগ্য পরিবর্তন করতে দেশ থেকে দেশান্তরি হচ্ছে প্রতিনিয়ত বহু মানুষ সেটি সরকারিভাবে আবার বেসরকারীভাবেও বেশি । উদেশ্য কেবল একটি আর সেটি হচ্ছে টাকা উপার্জন করা । অনেকে ভিসার উপর ভিত্তি করে বিদেশ পাড়ি দিয়ে থাকে । আগের থেকেও আমাদের দেশের সাথে মধ্যপ্রাচ্যের সাথে একটা সুন্দর সম্পর্ক ছিল । 
সূচীপত্রঃএখনো আছে সেই সম্পর্ক | তাই তো আমাদের দেশের মানুষ কুয়েত, দুবাই, ওমান এবং সৌদি আরব বেশি যায় কর্মের জন্যে । তাই আজকে আমরা কুয়েত হোটেল ভিসা বেতন কত সেই নিয়ে আলোচনা করবো সাথে শ্রমিকদের ভিসা বেতন কত, রেস্টুরেন্ট ভিসা বেতন কত, ক্লিনার ভিসা বেতন কত এবং কুয়েতে সর্বনিম্ন বেতন কত এই নিয়ে সম্পূর্ণ আলোচনা থাকছে । 

কুয়েতে সর্বনিম্ন বেতন কত

বিশ্বে এখনো কুয়েতের টাকার মান অনেক বেশি । শুধু কুয়েত হোটেল ভিসা বেতন কত তাই নই অনেক ভিসা এখন কুয়েতে খুলে দিয়েছে । তাই বাংলাদেশিরা দলে দলে কুয়েতে পাড়ি জমায় । কিন্তু আপনি জানেন কি কুয়েতের সর্বনিম বেতন কত । আমরা জানি, যে দেশে শ্রম বাজারের চাহিদা বেশি সে দেশের টাকার মান ও বেশি ।

তাই কুয়েত সরকার সরকারি ভাবে ঘোষণা দিয়েছেন যে একজন শ্রমিকের সর্বনিম্ন বেতন হচ্ছে ৬০ দিনার । আর এই ৬০ দিনার মানে হলো বাংলাদেশী প্রায় ২০০০০/- টাকার সমান । অর্থাৎ যে শ্রেণীর কাজ হোক কয়েতে সর্বনিম্ন বেতন হচ্ছে ৬০ দিনার। 


যা বাংলা টাকায় ২০ হাজার টাকা । তাই আপনারা যারা কুয়েতে ভাল কাজ জেনে যাবেন তাদের অন্তত ধারণা থাকবে যে কুয়েতে সর্বনিম্ন বেতন কত হতে পারে । এবার আপনি যত বেশি ভাল কাজের অভিজ্ঞতা দেখতে পারবেন ততবেশি আপনার বেতন হবে । 


তবে আমাদের বাংলাদেশিরা কুয়েতে গেলে অন্তত ৬০ হাজার টাকা থেকে ৭০ হাজার টাকা পর্যন্ত উপার্জন করে থাকে । আমাদের তরফ থেকে পরামর্শ থাকবে যে, আপনি যে কাজেই যান না কেন ভাল করে কাজের শিখে অভিজ্ঞতা নিয়ে যাবেন । 


কারণ ভাল কাজের অভিজ্ঞতা সম্পন্ন হয়ে গেলে আপনার কুয়েতে গিয়ে অন্তত কুয়েতের সর্বনিম্ন বেতনের জন্যে বসে থাকতে হবে না । যেহেতু আমাদের বাংলাদেশিরা অন্তত একটি ভাল পরিমান অর্থ উপার্জন করে এবং দেশে রেমিটেন্স পাঠায় ।

কুয়েতে শ্রমিকদের ভিসা বেতন কত

ভিবিন্ন ধরণের কাজের চাহিদা রয়েছে এই কুয়েতে । শুধু কুয়েত হোটেল ভিসা বেতন কত তাই নই । কারণ তাদের দেশের ভিবিন্ন রকম দালান নির্মাণ, রাস্তার কাজ ও সুন্দর্য বর্ধনের জন্যে বিভিন্ন রকম পার্ক এবং আরো নানা রকম কাজের জন্যে এই কুয়েতে বিশেষ করে এশিয়ার কয়েকটি দেশ থেকে লোক সংখ্যা নিয়ে থাকে । 

যেহেতু মধ্যপ্রাচ্যের দেশ গুলির মধ্যে কুয়েত খুব ধনি দেশ । তাদের হোটেল ব্যবসা থেকে শুরু করে বিভিন্ন শ্রেণীর পেশার কাজের জন্যে শ্রমিকের দরকার হয় । বিশেষ করে এই ক্ষেত্রে শ্রমিকদের ভিসা বেতন হল ৭৫ দিনার । 


কিন্তু এই টাকা উপার্জন করার জন্যে ভারত, নেপাল ও মিশরের শ্রমিকের ভিসা খরচ করতে হয় ১ থেকে দেড় লাখ টাকা । আর বাংলাদেশিদের খরচ করতে হয় ৬ থেকে ৭ লাখ টাকা । 


কুয়েতে শ্রমিকদের ভিসার বেতন কত অনেকে জানতে চায় তাদের জন্যে  বলার চেষ্টা করেছি মাত্র । আবার কর্ম ভেদে কুয়েতে শ্রমিকদের ভিসা বেতন অনেকের বাড়তি ও হতে পারে ।  

কুয়েত হোটেল ভিসা বেতন কত

কুয়েত হোটেল ভিসা বেতন কত এই কথা অনেক জায়গায় আমি শুনেছি এবং অনেক মানুষ এই হোটেল ভিসা নিয়ে পাড়ি জমিয়েছেন । কিন্তু কুয়েতে হোটেল ভিসা বেতন কত জানার আগে জানতে হবে হোটেলে কোন কাজের জন্যে আপনি যাচ্ছেন । কারণ কুয়েতে হোটেল ভিসা অনেক রকম আছে । একটি হোটেলে রিসেপসনিষ্ট থেকে শুরু করে ক্লিনার, বেল বয়, শেফ এবং রান্না বান্না সহায়ক ভিসা পর্যন্ত থাকে ।


কুয়েতে হোটেল ভিসা বেতনের জন্যে আমরা উপরোক্ত সকল পদের জন্যে কার বেতন কত সেই বিষয়ে একটি তালিকা দেওয়ার চেষ্টা করছি আশা করি কুয়েত হোটেল ভিসা বেতন কত এই নিয়ে আর দ্বিধা দ্বন্দ থাকবে না । হয়ত সময় অনুযায়ী একটু তারতম্য হতে পারে। 


কুয়েত হোটেল ভিসা বেতনের মধ্যে রিসেপসনিস্ট ২৫০ থেকে ৫০০ দিনার পর্যন্ত । 

কুয়েত হোটেল ভিসা বেতনের মধ্যে বেল বয় ১০০ থেকে ২০০ দিনার পর্যন্ত । 

কুয়েত হোটেল ভিসা বেতনের মধ্যে ক্লিনার ৭৫ থেকে ১৫০ দিনার পর্যন্ত । 

কুয়েত হোটেল ভিসা বেতনের মধ্যে রান্না বান্না সহায়ক ১৫০ থেকে ৩০০ দিনার পর্যন্ত । 

কুয়েত হোটেল ভিসা বেতনের মধ্যে শেফ ৪০০ থেকে ১০০০ দিনার পর্যন্ত । 


উপরোক্ত সবার হোটেলের একেকটি পদের বেতনের কথা বলা হয়েছে । তারপর ও কথা থাকে যে কাজের অভিজ্ঞতা অনুযায়ী এবং হোটেলের অবস্থানের কারণে কিছুটা কুয়েত হোটেল ভিসা বেতন ভিন্ন বা তারতম্য হতে পারে । 

আরও পড়ুনঃ কানাডা ফ্যামিলি ভিসা ফি ফ্রম বাংলাদেশ 

কুয়েত রেস্টুরেন্ট ভিসা বেতন কত

কুয়েত হোটেল ভিসা বেতন কত এবং কুয়েত রেস্টুরেন্ট ভিসা বেতন কত তা নিয়ে দ্বন্ধে পড়লে হবেনা । সহজে আমরা খুব তাড়াতাড়ি কুয়েত যেতে চায় । কারণ কুয়েতে রেস্টুরেন্ট এর ভিসা সহজে পাওয়া যায় কিন্তু কুয়েত রেস্টুরেন্ট ভিসা বেতন কত এই বিষয়ে আমরা অনেকে জানিনা । আবার অনেকেরই জানার আগ্রহ রয়েছে । 

কুয়েত হোটেল ভিসা বেতন কত

কুয়েত রেস্টুরেন্ট ভিসা অনেক চাহিদা রয়েছে এবং এই রেস্টুরেন্ট ভিসার জন্যে অনেক মানুষ লাগে প্রতিবছর তাদের । আর এই রেস্টুরেন্ট এর কাজ গুলি হয়ে থাকে ঘন্টা বেসিস ।  

কুয়েতে রেস্টুরেন্ট ভিসার বেতন হয় বাংলা টাকায় ৪০ হাজার থাকা থেকে ৬০ হাজার টাকা । যা কুয়েত রেস্টুরেন্ট ভিসা বেতন কুয়েতে সরকারি ভাবে ১১৫ দিনার থেকে ১৭০ দিনার পর্যন্ত এটি অনেক ক্ষেত্রে ২০০ দিনার পর্যন্ত হয়ে থাকে ।   

কুয়েত ক্লিনার ভিসা বেতন কত

কুয়েত হোটেল ভিসা বেতন কত এবং কুয়েত ক্লিনার ভিসার বেতন কত এই নিয়ে নানা রকম প্রশ্ন আমরা অনলাইনে দেখতে পাই । মদ্য কথা হচ্ছে প্রায় মানুষ ই কুয়েত এ যেতে চাই কিন্তু কুয়েত ক্লিনার ভিসা বেতন কত তা কিন্তু অনেকের কাছে আজো অজানা । 


তবে কুয়েত ক্লিনার ভিসার মধ্যে ও অনেক রকম ক্লিনারের কাজ থাকে । যেমন কোম্পানির ক্লিনার ভিসা, উচ্চমানের কোম্পানির ক্লিনারের ভিসা বেতন আবার সাধারণ ক্লিনার কোম্পানির ভিসার বেতন । 


এই রকম কুয়েত ক্লিনার ভিসা পাওয়া যায় এবং চাহিদা ও অনেক বেশি । তবে কথা হচ্ছে সব ক্লিনার ভিসা বেতন প্রায় সাবান । কোম্পানি ভেদে একটু তারতম্য রয়েছে । কুয়েত ক্লিনার ভিসা বেতন প্রায় ৪০ হাজার টাকা থেকে শুরু করে কোম্পানি ভেদে ৭০ হাজার টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে । 


তবে কম করে নিম্ন মানের কুয়েত ক্লিনার ভিসা ৪০ হাজার টাকা থেকে শুরু হয় । আবার উচ্চ মানের অফিস ক্লিনার ভিসা বেতন ৮০ হাজার টাকা পর্যন্ত হতে পারে এবং অনেকে এই টাকা পর্যন্ত কুয়েতে ক্লিনার বেতন পেয়ে থাকেন ।     

কুয়েত কন্সট্রাকশন ভিসা বেতন কত

কুয়েত সকল দিকে সমৃদ্ধ একটি মধ্যপ্রাচ্যের দেশ । যেখানে প্রতিনিয়ত বিভিন্ন রকম কনস্ট্রাকশনের কাজ চলছে এবং লোকের প্রয়োজন রয়েছে অনেক বেশি । তাই অনেকের ই জানতে চাওয়া যে কুয়েত কনস্ট্রাকশন ভিসা বেতন কত । 


একদম নতুন হিসেবে গিয়ে কনস্ট্রাকশনের কাজ করলে সেই ক্ষেত্রে আপনি একটু কম বেতনে নিয়োগ হবেন । কিন্তু যদি একটু অভিজ্ঞতা সম্পন্ন হয়ে যায় তাহলে  সর্বনিম্ন আপনার বেতন দাঁড়াবে ৫০ হাজার টাকা থেকে ৭০ হাজার টাকা পর্যন্ত । 


অনেকাংশে  ১ লক্ষ টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকেন । তবে কুয়েত কন্সট্রাকশন ভিসা বেতন একদম নিম্ন মানের হলে ১৪০ দিনার থেকে ৩০০ দিনার পর্যন্ত হয়ে থাকে । 

কুয়েত হোটেল ভিসা বেতন কত এই নিয়ে লেখকের শেষ মন্তব্য

কুয়েত হোটেল ভিসা বেতন কত, কুয়েত কন্সট্রাকশন ভিসা বেতন কত, কুয়েত ক্লিনার ভিসা বেতন কত এবং কুয়েত রেস্টুরেন্ট ভিসা বেতন কত এই নিয়ে আমরা বিস্তর আলোচনা করেছি । কুয়েত কোন কোন কাজের ভিসা কেমন বেতন হতে পারে তা নিয়ে আলোচনা করেছি আশা করি মনের দ্বন্দ্ব দূর হয়ে যাবে । 


আপনারা এই আর্টিকেল থেকে একটি সুন্দর ধারণা পেয়েছেন আশা করি । তাই আপনার প্রবাস জীবন সুন্দর হউক এবং অনাগত কুয়েত যাত্রীদের শুভ কামনা করে আজকের মত শেষ করছি ।


খুবই আগ্রহের সহিত জিজ্ঞাসিত প্রশ্নাবলী ( FAQ )

কুয়েত সর্বোচ্চ বেতন কত ?
কুয়েতের সর্বোচ্চ বেতন হল ৪০০ দিনার থেকে ৫০০ দিনার পর্যন্ত যা বাংলা টাকায় ১৪৫ হাজার টাকা থেকে ১৭৫ হাজার টাকা পর্যন্ত হতে পারে । আবার এর চেয়ে বেশি বেতনের মানুষ রয়েছে
। 
কুয়েতে কোন কাজের চাহিদা বেশি ?
কুয়েতে বিশেষ করে কয়েকটি কাজের চাহিদা বেশি হয়ে থাকে সেগুলি হলো ড্রাইভিং, ইলেক্ট্রিশিয়ান, ওয়েল্ডিং মিস্ত্রি, রেস্টুরেন্ট এবং কনস্ট্রাকশনের কাজ । 
কুয়েতে ড্রাইভিং ভিসার বেতন কত ?
কুয়েতে ড্রাইভিং ভিসার বেতন নতুন অবস্থায় বাংলা টাকায় ৫০ হাজার টাকা থেকে ৬০ হাজার টাকা কোম্পনীর আন্ডারে গেলেযা কুয়েতের দিনার হয় ১৪০ দিনার থেকে ১৭০ দিনার পর্যন্ত । তাছাড়া ব্যক্তিগত ভাবে কারো গাড়ির ড্রাইভারী করলে সেক্ষেত্রে ৪০ হাজার টাকা থেকে ৫০ হাজার টাকা হয়ে থাকে যা কুয়েতের দিনার হিসেবে ১১৫ দিনার থেকে ১৪০ দিনার পর্যন্ত  ।

আপনার জন্যেঃ কুয়েত কোম্পানি ভিসা বেতন কত

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

সবারজন্যে.কম এর নীতিমালা মেনে এ কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ১