ড্রাগন ফলের পুষ্টিগুণ ও উপকারিতা এবং বাচ্চাদের ড্রাগন ফল খাওয়ানোর উপকারিতা - Dragon Fruit

ড্রাগন ফলের পুষ্টিগুণ ও উপকারিতা


সূচীপত্রঃড্রাগন ফলের পুষ্টিগুণ ও উপকারিতা | ফলের মধ্যে অনেক ফল আমরা নিত্যদিন খেয়ে থাকি কিন্তু ড্রাগন ফল সম্রতি আমাদের দেশে খুব বেশি প্রচলিত এবং জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে । তাই আমরা ও ড্রাগন ফলের পুষ্টিগুণ ও উপকারিতা নিয়ে কথা বলার জন্যে এসেছি । 


এই ফলের সুন্দর্য্য দেখে মানুষ খুব বেশি আগ্রহ প্রকাশ করে কিন্তু অনেকে এর পুষ্টিগুন সম্পর্কে জানেনা । তাছাড়া এর উপকারিতাও বা কি জানেনা এখনো অনেকে । আজকে আমাদের এই আর্টিকেলে আমরা ড্রাগন ফলের পুষ্টিগুণ ও উপকারিতা নিয়ে কথা বলব এবং অজানাকে জানার চেষ্টা করবো । 

ড্রাগন ফল কি | What is Dragon Fruit

ড্রাগন ফল হলো ফনিমনসা (ক্যাকটাস) প্রজাতির ফল । এর গাছ কাঁটা জাতীয় । এটি  চিনাদের ভাষায় পিতায়া নামেও পরিচিত খুব সুস্বাধু একটি ফল । Hylocereus Undatus হল বৈজ্ঞানিক নাম । 


মেক্সিকো, মধ্য আমেরিকা এবং দক্ষিন আমেরিকা থেকে এই ফলটি দক্ষিন-পূর্ব এশিয়াতে বস্তৃতি পেয়েছে এই ড্রাগন ফল । এই ফল হরেক রকমের হয়ে থাকে তবে লাল রঙের ড্রাগন ফল বেশি দেখা যায় ।  

গর্ভাবস্থায় ড্রাগন ফলের উপকারিতা

ড্রাগন ফলের পুষ্টিগুণ ও উপকারিতা রয়েছে বটে কিন্তু আপনি জানেন কি গর্ভবস্থায় ড্রাগন ফলের উপকারিতা রয়েছে অনেক ?  গর্ভবস্থায় অনেক কিছু খাওয়া নিষেধ থাকলেও ড্রাগন ফল খাওয়া এই পর্যন্ত কেউ নিষেধ করে নি বা না খাওয়ার জন্যে কোন তথ্য পাওয়া যায় নি ।

তবে গর্ভবস্থায় ড্রাগন ফল খাওয়া নই শুধু খেলে অনেক কিছুর উপকারিতা পাওয়া যায় । 
যেমন গর্ভবস্থায় অনেকের ওমেগা ৩ ঘাটতি থাকে সেই ক্ষেত্রে ডাক্তার ওমেগা ৩ ঘাটতি পুরনের জন্যে বিভিন্ন কোম্পানীর ক্যাপ্সুল রিকমেন্ড করে থাকে ।

কিন্তু আপনি জানেন কি গর্ভাবস্থায় ড্রাগন ফলের উপকারিতার ক্ষেত্রে ওমেগা ৩ এর ঘাটতি পুরন করতে ড্রাগন ফল খুবই উপকারি । 

ড্রাগন ফল খেলে আপনার আর ওমেগা ৩ এর জন্যে ক্যাপসুল খেতে হবেনা ।  আয়রেনের মাত্রা বৃদ্ধির জন্যে খুবই উপকারি এই ড্রাগন ফল । বিশেষ গর্ভবস্থায় এই আয়রনের ঘটতি থাকে বেশি। এইক্ষেত্রে ড্রাগন ফল আয়রনের জন্যে খুবই গরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে ।

ড্রাগন ফলের পুষ্টিগুন ও উপকারিতা

আমাদের দেশে বিভিন্ন ফলের মধ্যে ড্রাগন ফল এখন বেশি জনপ্রিয় একটি ফল। তাই এত বেশি কথা হচ্ছে এই ড্রাগন ফল নিয়ে। অনলাইনে ড্রাগন ফলের পুষ্টিগুণ ও উপকারিতা নিয়ে অনেকে জানতে চেয়েছেন তাই আমাদের এই আর্টিকেল । 


আরও পড়তে পারেনঃ লেবুর শরবতের উপকারিতা 

ড্রাগন ফলের পুষ্টিগুণ

ড্রাগন ফলের পুষ্টিগুণ ও উপকারিতা রয়েছে তার মধ্যে আমরা পুষ্টিগুন গুলি বলার চেস্টা করছি । আমাদের শরিরে অনেক পুষ্টি প্রয়োজন হয়  যা আমরা অনেকে নিত্যদিন ঔষধের মাধমে পূরণ করে থাকি ।

শরীরের অনেক পুষ্টিগুনে আমরা ভুগে থাকি কিন্তু ড্রাগন ফল আমাদের সেই পুষ্টিগুণ পূরণ করতে সক্ষম । যেমন ড্রাগন ফলে রয়েছে 

ভিটামিন সি 

ওমেগা ৩ 

ফাইবার 

আয়রন 

ফ্যাটি এসিড 

বিটা ক্যারোটিন

লাইকোপেন

ক্যালসিয়াম 

ড্রাগন ফলের উপকারিতা 

  • যাদের মধ্যে কোষ্টকাঠিন্য রয়েছে তাদের জন্যে এই ড্রাগন ফল খুবই উপকারী কারণ ড্রাগন ফল হলো আঁশ জাতীয় ফল । 
  • রক্তে চর্বি বেড়ে গিয়ে যাদের স্ট্রোকের ঝুঁকি রয়েছে তাদের জন্যেও এই আঁশ জাতীয় ড্রাগন ফল বেশি উপকার বয়ে আনে এবং হৃদপিণ্ডের স্বাস্থ্য ভাল রাখে । 
  • ড্রাগন ফলে ভিটামিন সি থাকায় যাদের চুল পড়ার সমস্যা রয়েছে এবং যাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম তাদের জন্যে খুবই উপকারী । 
  • লাইকোপেন রয়েছে বলে ক্যান্সারের প্রতিরোধক হিসেবে কাজ করে ।
  • যাদের অকালে দৃষ্টিশক্তির ক্ষতি হয়েছে তাদের জন্যে ক্যারোটিন সমৃদ্ধ এই ফল উপকারী ।
  • ক্যালসিয়াম থাকায় হাঁড়ের জন্যে ও দাঁতের জন্যে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে । 
  • আয়নের উৎস হিসেবে রক্তে হিমোগ্লোবিনের পরিমান বাড়িয়ে তুলে। যা গর্ভবতী নারীর জন্যে উপকারী । 
  • ড্রাগন ফলে জলীয় অংশ থাকায় ওজন কমাতে সহায়তা করে । 

ড্রাগন ফল খাওয়ার সঠিক সময়

ড্রাগন ফল খাওয়ার সঠিক সময় কখন অনেকে জানার আগ্রহ রাখেন । ড্রাগন ফলের পুষ্টিগুণ ও উপকারিতা রয়েছে বটে তবে কথা হচ্ছে শুধু ড্রাগন ফল নই সমস্ত ফল খাওয়ার নিয়ম হচ্ছে আসলে সকালে । ডাক্তারের এই পরামর্শ দেওয়া হয় । 

তার কারণ হচ্ছে সকালে এই ড্রাগন ফল খেলে ফলের চিনির পরিমান খুব দ্রুত ভেঙ্গে দেয় পরিপাক তন্ত্র। এতে করে সমস্ত পুষ্টিগুণ পেয়ে যায় শরীর। তবে অনেকে মধ্যাহ্ন ভোজের পর বা রাতের খাওয়ার পরে ও খাওয়ার জন্যে রিকমেন্ড করে থাকে । 

কারণ রাতে খেলে ভাল ঘুম হয়। তবে আপনি চাইলে সকালে খেতে পারেন এতে করে আপনার জন্যে খুব উপকার হতে পারে । 

ড্রাগন ফল কত টাকা দাম কেজি প্রতি 

ড্রাগন ফল যেহেতু বর্তমানে আমাদের দেশে খুবই জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে সেহেতু আমাদের দেশের অনেক দরিদ্র শ্রেণীর মানুষ রয়েছে যাদের জন্যে সাধ্যের বাইরেও হতে পারে । তাই ড্রাগন ফলের দাম কেজি কত করে এই কথা বলার চেষ্টা করছি ।

যদিও ড্রাগন ফলের পুষ্টিগুণ ও উপকারিতা রয়েছে প্রচুর সেহেতু ড্রাগন ফলের দামের আগে জানতে হবে কিছু বিষয় । কারণ ড্রাগন ফলের অনেক রঙের পাওয়া যায়, যেমন হলুদ, সবুজ ও লাল । তবে ড্রাগন ফলের দাম কেজি ৩০০ টাকা থেকে ৪০০ টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে । 


আবার কিছু উন্নত জাতের এবং লাল রঙের ড্রাগন ফল কেজি ৪০০ টাকা থেকে ৫০০ টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে বা পাওয়া যায় ২০২৪ সালে। তবে মনে রাখতে হবে স্থান ভেদে দামের তারতম্য হতে পারে। তবে এই রেঞ্জের ভিতরে আপনি ড্রাগন ফল পেয়ে যাবেন । 


এই ড্রাগন ফলের দাম না জেনে কিনতে গেলে অনেক সময় দাম বেশি দিয়ে আসতে হবে। কারণ এটি এখন বাংলাদেশে খুবই জনপ্রিয় একটি ফল হওয়ায় এর চাহিদা দিন দিন বেড়েই চলেছে । 

বাচ্চাদের ড্রাগন ফল খাওয়ানোর উপকারিতা

ড্রাগন ফল শুধু বয়স্ক কিংবা মধ্য বয়সের মানুষের জন্যে নই । সকল শ্রেণীর মানুষের জন্যে। এর মধ্যে বাচ্চাদের ড্রাগন ফল খাওয়ার উপকারিতা রয়েছে অনেক । 


ড্রাগন ফলের পুষ্টিগুণ ও উপকারিতা সকল বয়সের মানুষের জন্যে রয়েছে । বাচ্চাদের ড্রাগন ফল খাওয়ালে অনেক উপকার পাওয়া যায়। আমরা নিচে তা লিস্ট আকারে বলার চেষ্টা করছি । 


ড্রাগন ফলের পুষ্টিগুণ ও উপকারিতা

  • বাচ্চাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে বেশি উপকারী এই ড্রাগন ফল কারণ এতে রয়েছে এন্টি অক্সিডেন্ট । এছাড়াও বাচ্চাদের কোষগুলি কে উত্তম রূপে সুরক্ষা দিয়ে থাকে ।  
  • আপনার বাচ্চার হার্টকে জীবনের শেষ পর্যন্ত সুরক্ষা দেয় এই ড্রাগন ফল । 
  • ক্যালসিয়াম থাকার কারণে বাচ্চাদের হাঁড়কে মজবুত করতে খুবই উপকার বয়ে আনে । 
  • বাচ্চাদের স্বাস্থ্যকর ত্বক তৈরী করার ক্ষেত্রে ভিটামিন সি খুবই ভাল কাজ করে এই ড্রাগন ফল । 
  • ড্রাগন ফল বাচ্চাদের কিডনীর স্বাস্থ্য ভাল রাখে । 
  • বাচ্চার চোখের অবস্থা ভাল রাখতে ভিটামিন এ খুবই ভালো পরিমানে কাজ করে ।  

আরও পড়তে পারেনঃ মনোযোগ বৃদ্বির মেডিটেশন

ড্রাগন ফল খেলে কি প্রস্রাব লাল হয়

অনেকের মধ্যে এই দুশ্চিন্তা দেখা দিতেই পারে যে ড্রাগন ফল খেলে কি প্রস্রাব লাল হয় ? আসলে এই রকম কোন সমস্যার কথা এখনো পর্যন্ত শোনা যায় নাই। তবে আপনার যদি অন্য কোন রকম ঔষধ সেবনের প্রয়োজন হয় তাহলে সেই ঔষধের কারণে হয়ত এই সমস্যা দেখা দিতে পারে । 


কারণ ড্রাগন ফলের ভিতরের খাওয়ার পুষ্টিকর অংশটি সাদা । তাই প্রস্রাব লাল হওয়ার কারণ নেই । তবে ভিতরের লাল থাকে এমন ড্রাগন ফল ও রয়েছে ।  ড্রাগন ফলের উপরের অংশ সবুজ, হলুদ অথবা লাল হয়ে থাকে । ভিতরের অবস্থা একদম ভিন্ন । 


তারপর ও এই পরামর্শ দেওয়া যায় যে, যদি ড্রাগন ফল খাওয়ার পর আপনার প্রস্রাব লাল হয়ে থাকে তাহলে আপনি দ্রুত একজন চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে পারেন ।   

ড্রাগন ফলের অপকারিতা

ড্রাগন ফলের পুষ্টিগুণ ও উপকারিতার মধ্যে দুই একটি অপকারিতা ও রয়েছে। আমরা সবাই জানি যে সব কিছুর মধ্যে ভাল মন্দ দুই দিক বিরাজমান । শুধু উপকারিতা রয়েছে তা নই । 

ড্রাগন ফলের অপকারিতা ও রয়েছে কিছু তবে তা অতিরিক্ত খেলে। পরিমানের চেয়ে ড্রাগন ফল বেশি খেলে ডায়রিয়া হতে পারে। এছাড়াও রক্তচাপ কমে যাওয়ার সম্ভবনা রয়েছে যদি ড্রাগন ফল বেশি খান । 

কারণ আমাদের শরীরে যে পরিমান পুষ্টিগুণ রয়েছে তার চেয়ে বেশি হলে একটু বিপরীত প্রতিক্রিয়া তৈরী হতে পারে । 

ড্রাগন ফলের পুষ্টিগুণ ও উপকারিতা নিয়ে লেখকের শেষ কথা

ড্রাগন ফলের পুষ্টিগুণ ও উপকারিতা নিয়ে অনেক কথা আমরা এই পর্যন্ত বলে এসেছি যেমন ড্রাগন ফলের পুষ্টিগুণ ও উপকারিতা, গর্ভাবস্থায় ড্রাগন ফলের উপকারিতা, ড্রাগন ফল খাওয়ার সঠিক সময়, ড্রাগন ফল কত টাকা কেজি, বাচ্চাদের ড্রাগন ফল খাওয়ার উপকারিতা। 

 ড্রাগন ফলের দাম, ড্রাগন ফল খেলে কি প্রস্রাব লাল হয় এবং ড্রাগন ফলের অপকারিতা এই সব কিছু নিয়ে। কিন্তু এই ড্রাগন ফল শরীরের জন্যে কি পরিমান উপকার সাধন করে আপনি শুধু খেয়েই উপভোগ করতে পারবেন । তাই ভাল থাকবেন অন্যদিন অন্য কোন টপিকে কথা হবে । 


আপনার জন্যেঃ কালোজিরার উপকারিতা


এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

সবারজন্যে.কম এর নীতিমালা মেনে এ কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ১