সন্তান জন্মের পর কতদিন সহবাস নিষেধ

 

সন্তান জন্মের পর কতদিন সহবাস নিষেধ

বিশেষ করে প্রথম সন্তান জন্মের পর কতদিন সহবাস নিষেধ এবং কতদিন পর সহবাস করলে শারীরিক ভাবে সমস্যা হয় না এই চিন্তা নতুন দম্পতির মধ্যে থাকে। এই সম্পর্কে জানার জন্যে নতুন যারা বাবা মা হয়েছেন তাদের জন্যে এই আর্টিকেল।

পোস্টসূচীপত্রএবং আশা করি এই ব্লগের মাধ্যেম জানিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করবো যে, বাচচা হওয়ার কতদিন পর সহবাস করলে বাচ্চা হয়, সিজারে বাচ্চা হওয়ার কতদিন পর সহবাস করা যায় , সিজারের কতদিন পর সহবাস করলে বাচ্চা হয় এবং বাচ্চা হওয়ার পর সহবাস করার কিছু স্বাস্থ্যকর টিপস এই সবকিছু নিয়ে আমরা আলোচনা করবো। আপনার সন্তান হওয়ার পর যে চিন্তা মানুষের মধ্যে থাকে সেটা আপনার দূর হয়ে যাবে আমাদের এই ব্লগ পড়ার মাধ্যমে। তাহলে আর দেরি কিসের।

সন্তান জন্মের পর কতদিন সহবাস নিষেধ


কতদিন পর্যন্ত সহবাস নিষেধ থাকে একটি সন্তান জন্মের পর সেটি নির্ভর করে মায়ের শারীরিক গঠন এর উপর। তাছাড়া সন্তান জন্ম কিভাবে হয়েছে সেটি ও নির্ভর করে। যেমন নরমাল ডেলিভারি নাকি সিজার। এই দুভাবে সন্তান জন্ম দেয় নারীরা। কিন্তু সন্তান জন্মের পর কতদিন সহবাস নিষেধ সেই সম্পর্কে গাইনী বিশেষজ্ঞরা বলেন সন্তান জন্মের ৬ সপ্তাহ পর্যন্ত সহবাস করা নিষেধ থাকে।

তবে আপনি চাইলে চার সপ্তাহ থেকে ছয় সপ্তাহের মধ্যে সহবাস করতে পারেন। যদি একজন স্ত্রী শারীরিক ভাবে সুস্থ থাকে। কেউ কেউ ৬-৮ সপ্তাহের মধ্যে পর্যন্ত সহবাস করে। সন্তান জন্মের পর কতদিন সহবাস নিষেধ সেই সম্পর্কে আমরা বলার চেষ্টা করেছি। কিন্তু ব্যক্তিগত ভাবে বলতে হলে আমি বলব স্বামী স্ত্রী উভয়ের মধ্যে মনের মিল এবং নারীর শারীরিক অবস্থা ভাল হলে তবেই সহবাসে যাওয়া ভাল।

বাচচা হওয়ার কতদিন পর সহবাস করলে বাচ্চা হয়


বাচ্চা হওয়ার কতদিন পর সহবাস করলে বচ্চা হয় সে সম্পর্কে বলা শ্রেয় যে, মাসিক কখন শুরু হয়েছে সেটির উপর ভিত্তি করে। কারণ মেয়েদের পিরিয়ড বা মাসিক একটি নিয়মে চলে। সেটি ঠিক ঠাক মেনে চললে বাচ্চা হওয়ার সম্ভবনা থাকে অনেকাংশে।

মেয়েদের এই মাসিকের একটি স্ট্যান্ডার্ড পদ্বতি হলো মাসিক শুরু হওয়ার ৮ তম দিন থেকে ১৮ তম দিন পর্যন্ত মেয়েদের এই মাসিক সময়ে সহবাস করলে বাচ্চা হওয়ার সম্ভবনা বেশি থাকে। তবে অনেক মেয়েদের ক্ষেত্রে ১৯ তম দিন পর্যন্ত সময় থাকে। এই দিন গুলির মধ্যে আপনি সহবাস না করলে বাচ্চা হওয়ার সম্ভবনা থাকে না। তাই আপনার চাহিদার উপর নির্ভর করে বাচ্চা গ্রহণ কিংবা ত্যাগ করতে পারেন। 

সিজারে বাচ্চা হওয়ার কতদিন পর সহবাস করা যায়


বাচ্চা জন্ম দেওয়ার পর দম্পতিদের মধ্যে সহবাসের চাহিদার কারণে প্রশ্ন উঠে যে সিজারে বাচ্চা হওয়ার কতদিন পর সহবাস করা যায়। এক্ষেত্রে অন্তত ছয় সপ্তাহ পর্যন্ত অপেক্ষা করার দরকার হয় আবার এর চেয়ে বেশি ও দরকার হয়। তাছাড়া আপনি বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ নিতে পারেন। 

সন্তান জন্মের পর কতদিন সহবাস নিষেধ

সেক্ষেত্রে আপনি ভাল একটি পরামর্শ পেতে পারেন। অনেক কারণে সহবাস করা থেকে বিরত থাকতে হয়। সেটি একজন গাইনি বিশেষজ্ঞই ভাল জানবে। কারণ বিশেষজ্ঞর পরামর্শ মতে সহবাস করলে নিরাপদ থাকা যায়।

সন্তান জন্মের পর সহবাস করলে কি সমস্যা হতে পারে


একজন নারীর সন্তান জন্ম দেওয়ার পর অনেক প্রকার সমস্যা হয়ে থাকে। যদি সন্তান জন্ম দেওয়ার পর নির্দিষ্ট সময়ের আগে  সহবাস করে । কারন সে সময় মেয়েরা শারীরিক ভাবে দুর্বল থাকে । তাছাড়া হরমোনের তারতম্য ঘটে। বিভিন্ন বিষয় নিয়ে সমস্যা হতে পারে। সেই সময় সহবাস করলে অনেক সমস্যা হতে পারে। 


যেমন যৌনাঙ্গ শুষ্ক হয়ে যায়। তাই সহবাসে বেশি ব্যথা অনুভব হতে পারে। এই সমস্যা বুকের দুধ খাওয়ানোর ফলে হয়ে থাকে। এবং এই সময় সহবাস করলে রক্তপাত হতে পারে বেশি। কারণ এমনিতেই সন্তান জন্ম দেওয়ার পর কয়েকদিন বা সপ্তাহ ব্যাপি রক্তপাত হয়ে থাকে। 


আর পড়ুন ঃ

বাচ্চা হওয়ার পর সহবাস করার স্বাস্থ্যকর টিপস  


উপরুক্ত বিষয়গুলি যদিও ভীতি সৃষ্টি করে থাকে। তাহলে ও ভয়ের কোন কারণ নেই। আমরা কিছু স্বাস্থ্যকর টিপস দেওয়ার চেষ্টা করবো বাচ্চা হওয়ার পর সহবাস করার । যা আপনার বাচ্চা জন্ম দেওয়ার পর সহবাস করার ক্ষেত্রে কাজে আসবে। 


ধীরে চলুন


ধীরে চলুন মানে হলো প্রসবের পর সহবাসে ধীরে চলুন। এবং ডাক্তারের নির্দেশ অনুযায়ী একটু বিরতি নিন সহবাস করার জন্যে। অর্থাৎ সহবাসের জন্যে পূর্ণ ভাবে তৈরী না হয় পর্যন্ত সময় নিন। নারীদের গর্ভ আগের অবস্থা প্রস্তুত হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করা প্রয়োজন। সহবাস করার ক্ষেত্রে দুজনের মধ্যে ম্যাসেজ এর মত অন্তরঙ্গ মুহূর্ত কাটানোর চেষ্টা করুন। 

সন্তান জন্মের পর কতদিন সহবাস নিষেধ


ফোরপ্লে বাড়ান


ফোরপ্লে মানে হলো আপনার সঙ্গীকে সহবাসে পূর্বে গভীরভাবে আদর করুন বা উত্তেজিত করুন। যা স্বামী স্ত্রী দুজনের জন্যে সহবাসের জন্যে খুব উপকারী। আর নারীর যোনিকে তৈলাক্তকরন নিষ্কাশন করার জন্যে যথেষ্ট সময় দিন। 


লুব্রিকেন্ট ব্যবহার করুন


সেই সময় সহবাস করলে নারীর যোনিতে পিচ্ছিলভাব কম থাকে সেজন্যে লুব্রিকেন্ট ব্যবহার করুন। যাতে করে সহবাসে নারীর যোনিতে আঘাত না হয়। তবে বাজারে লুব্রিকেন্ট গুলি যোনিতে জ্বালা বাড়ানোর সম্ভবনা থাকে। সেই ক্ষেত্রে একটু সতর্কতা অবলম্বন করা প্রয়োজন। 

আপনার সঙ্গীর সাথে কথা বলুন


আপনার স্ত্রীর সঙ্গে আলাপ করুন কিভাবে সে সুস্থতা বোধ করেন। এবং অস্বস্তির কারণ কিছু হচ্ছে কিনা। এবং কিসে তার ভাল লাগে এবং খারাপ লাগে। এতে করে দুজনের মনের অবস্থা আরো ভাল থাকে এবং উপকারী সহবাসের জন্যে।

 

সন্তান জন্মদানের পর সহবাস করা কি খুব জরুরি  


একজন নারী সন্তান জন্ম দেওয়ার পর ৪০ দিন পর্যন্ত সহবাস বিরতি দেওয়া দরকার। তবে নির্দিষ্ট কোন সময় বাধা দেওয়া নেই। যা নির্দেশনা দেওয়া রয়েছে তা হলো শারীরিক ক্ষমতার উপর ভিত্তি করে। তবে এটি অন্তত বলা যায় যে মেয়েদের রক্ত পড়া বন্ধ হওয়া পর্যন্ত সহবাস বন্ধ রাখুন ।  সহবাস শুধু শরীরের উপর প্রভাব ফেলে না।  মনের উপরে ও প্রভাব ফেলে। 

এই সহবাস করার জন্যে উভয়ের সুবিধা অসুবিধা বিবেচন করা খুব জরুরি। সন্তান জন্মদানের পর সহবাস করা খুব জরুরি না হলে ও সেটি বর্তায় নিজের মানসিকতার উপর। আপনার সঙ্গীর সুবিধা অসুবিধা বিবেচনা করা একজন পুরুষ সঙ্গীর কর্তব্য। 

শেষ কথা


সন্তান জন্মের পর কতদিন সহবাস নিষেধ এই সম্পর্কে অনেকক্ষন ধরে কথা বলেছি এবং প্রসবের পর ও কিছু টিপস আমরা দিয়েছি কিভাবে সহবাস করা যায়। আশা করি নিজের সংযমতা বজায় রেখে নিজের জীবন এবং আপনার স্ত্রীর জীবন উপভোগ করার সুযোগ দিবেন। 

এতে করে দাম্পত্য জীবন মধুময় হয়ে উঠবে। মনে রাখবেন সহবাস ই সব কিছু না। কিন্তু ভালোবাসা দিয়ে এবং আপনাদের সুখ দুঃখ ভাগাভাগি করে উভয়ের মধ্যে সহবাস নির্ধারণ করবেন।  

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

সবারজন্যে.কম এর নীতিমালা মেনে এ কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ১