থাইরয়েড নরমাল কত পয়েন্ট এবং থাইরয়েড কমানোর ঘরোয়া উপায়

থাইরয়েড নরমাল কত পয়েন্ট

সূচীপত্রথাইরয়েড নরমাল কত পয়েন্ট - থাইরয়েড আমাদের শরীরে আয়োডিন জাতিয় ঘাটতির ফলে হয়ে থাকে। যদি ও আমরা  থাইরয়েড নরমাল কত পয়েন্ট এই সম্পর্কে জানতে এসেছি । কিন্তু এটি ছোট্ট প্রশ্ন হলেও অনেক কিছু এই প্রশ্নের ভিতর রয়ে গেছে। আমরা আজকে এই থাইরয়েড সম্পর্কে আদ্যপান্ত জানব । তৎমধ্যে রয়েছে, সাধারণ অর্থে থাইরয়েড কি? থাইরয়েড টেস্ট খরচ কত ? থাইরয়েড কমানোর উপায় ? থাইরয়েড হলে কি বাচ্চা হয় না ? থাইরয়েড নরমাল রেঞ্জ চার্ট ? থাইরয়েড টেস্ট কিভাবে করে ? থাইরয়েড কি সম্পুর্ন ভাল হয় ? 
ছেলেদের তুলনায় মেয়েরা থাইরয়েড আক্রান্ত বেশি হওয়ার কারণ ? শরীরে থাইরয়েডের সমস্যা কেন হয় ? থাইরয়েড সমস্যা দেখা দিলে কি কি পরিবর্তন  লক্ষণীয় হয় ? থাইরয়েড গ্রন্থির কি ধরনের সমস্যা হতে পারে ? টি এস এইচ এর মাত্রা কত ? এই সব থাইরয়েড নিয়ে সব প্রশ্নের জট খুলে দেওয়া হবে সাথেই থাকবেন  ।

সাধারণ অর্থে থাইরয়েড কি ?

আমরা অনেকে এই থাইরয়েড কি তা জানিনা । থাইরয়েড কে সাধারন ভাবে থাইরয়েড বা থাইরয়েড গ্রন্থি বলে । এটি মেরুদন্ডী প্রানীদের মধ্যে থাইরয়েড গ্রন্থি নামে পরিচতি । এই থাইরয়েড মানুষের গলার পাশে থাকে । এটি যখন স্বাভাবিক ভাবে বিদ্যমান থাকে তখন তাকে কোন নামে ডাকে না বা থাইরয়েড বলে না । 

তখনি মানুষ থাইরয়েড গ্রন্থি বলে, যখন এটি তার নির্দিষ্ট অবস্থা থেকে আকারে বড় হয়ে যায় বা ফুলে যায় তখন । তখন এটি থাইরয়েড রোগে পরিনত হয় । এবং এটি বড় হলে তখন শরীরে বিভিন্ন রোগের দেখা দেয় । 

থাইরয়েড এর কাজ কি ?

থাইরয়েড এর কাজ মানব শরীরে অনেক । থাইরয়েড হল এক প্রকার হরমোন । যা থাইরয়েড গ্রন্থি উৎপন্ন করে আয়ডিন থেকে । এই থাইরয়েড তার যতটুক দরকার সে ততটুকু উৎপন্ন করে থাকে আয়ডিন থেকে এবং শরীরের বিভিন্ন অংশে ছড়িয়ে দিয়ে থাকে । 

তবে এই থাইরয়েড যখন প্রয়োজনের তুলনায় বেশি থাইরয়েড হরমোণ উৎপন্ন করা শুরু করে তখন যতসব সমস্যার সম্মুখীন হতে হয় । মানব শরীরের মধ্যে এর প্রতিক্রিয়া দেখা দেয় ।

থাইরয়েড নরমাল কত পয়েন্ট ?

মানব শরীরে থাইরয়েড এর নির্দিষ্ট একটি পয়েন্ট মেইনটেইন করে শরীর চলে। কিন্তু এই স্বাভাবিক কত পয়েন্ট থাকলে আমরা থাকে থাইরয়েড নরমাল পয়েন্ট বলে থাকি। অনেকে কিন্তু এই বিষয়ে খুব অজ্ঞ। বিজ্ঞ হওয়ার জন্যে আজকে আমাদের এই থাইরয়েড নরমাল কত পয়েন্ট এই আর্টিকেলে থাকুন বা পড়ুন তাহলে থাইরয়েড নরমাল কত পয়েন্ট এর সাথে আরো অনেক কিছু জানতে পারবেন বন্ধুরা

নিচে আমরা থাইরয়েডের নরমাল পয়েন্ট কত সেই সম্পর্কে দেখাচ্ছি। তাই ভাল করে লক্ষ্য করুন। এইখানে জানার এবং বুজার অনেক বিষয় রয়েছে। 

থাইরয়েড নরমাল পয়েন্ট ?

মানুষের দেহের মধ্যে যখন এই থাইরয়েডের সমস্যা দেখা দেয় বা থাইরয়েড রিলেটেড কিছু উপস্বর্গ দেখা দেয় তাহলে ডাক্তার রা থাইরয়েড পরীক্ষা দিয়ে থাকে। কিন্তু এই থাইরয়েড পরীক্ষা দিলেও থাইরয়েডের কিছু বিষয় রিলেটেড। যেমন থাইরয়েড হরমোন থাইরক্সিন (T4) এবং থাইরয়েড হরমোন ট্রাইইডোথাইরনিন (T3) এই দুটি উপাদান সংযুক্ত। এবং এদের সাথে আয়োডিন এবং টাইরোসিন দিয়ে একসাথে গঠিত হয় থাইরয়েড হরমোনের মধ্যে।
নিচে থাইরয়েডের পরীক্ষার মাত্রা গুলি দেওয়া হলো । 

TSH (থাইরয়েড স্টিমুলেটিং হরমোন) – ০.৪ - ৪.০  mIU/L
T4 (থাইরয়েড হরমোন থাইরক্সিন) ৫.০-১২.০ ng /dL
T3 (থাইরয়েড হরমোন ট্রাইইডোথাইরনিন) – ৮০-২০০ ng/dL

এখানে থাইরয়েডের নরমাল পয়েন্ট হচ্ছে ২.৫ mIU বা মিলিইউনিট প্রতিলিটারে । কিন্তু পরীক্ষায় দেখাচ্ছে TSH এ ০.৪ থেকে ৪.০ মিলিইউনিট প্রতিলিটারের মধ্যে । এখানে ভাল করে লক্ষ্য করুন যখন আমরা নরমাল হিসেবে কেন ২৫ mlU/L  ধরলাম ।  
বিশেষজ্ঞদের মতবাদে বলা হচ্ছে যদি কারো নরমাল পয়েন্ট ২৫  mlU/L থাকে তাহলে তাকে স্বাভাবিক ভাবে নরমাল বলে। এর থেকে উপরে হলে হলে ও ৪.০ mlU/L মধ্যে থাকলেও তাকে বিপদসীমা বলা হয়না।  তবে ৪ mlU/L উপরে হলে তাকে উচ্চ TSH বলে ধরা হয়। 

থাইরয়েড সমস্যা দেখা দিলে কি কি পরিবর্তন  লক্ষণীয় হয়

থাইরয়েড নরমাল কত পয়েন্ট সেটি জানা থাকলে আপনি অনেক কিছুই বুজতে পারবেন । কারন হচ্ছে থাইরয়েডের দুই প্রকারের লক্ষনীয় ভাবে পরিলক্ষিত করা যায় । এক হচ্ছে থাইরয়েড নির্দিষ্ট পয়েন্ট থেকে বৃদ্বি পেলে আরেক হচ্ছে থাইরয়েড নির্দিষ্ট পয়েন্ট থেকে কমে গেলে । আমরা দুই রকমের সমস্যা সম্পর্কে বলার চেস্টা করছি লিস্ট আকারে ।

থাইরয়েড নরমাল কত পয়েন্ট

থাইরয়েড কমে গেলে যে পরিবর্তন লক্ষণীয় হয়

  • আপনার মাথার চুল রুক্ষ ও শুস্ক হয়ে ক্ষতিগ্রস্থ হয় বা পড়ে যাবে। 
  • মেয়েদের ক্ষেত্রে ঘন ঘন মাসিক চক্র দেখা দেয় ।
  • সহজেই সব কিছু ভুলে যাওয়ার প্রবণতা বৃদ্ধি পাবে। 
  • কণ্ঠের অবস্থা কর্কশ হয়ে যাবে বা কর্কশ স্বরে কথা বলতে দেখা দেবে। 
  • অকারণে ওজন বৃদ্ধি পাবে। 
  • অস্বাভাবিক ভাবে ক্লান্তি বেড়ে যাবে।  
  • ঠান্ডার প্রতি সংবেদনশীলতা দেখা দিবে। 

অতিমাত্রায় থাইরয়েড হলে যে পরিবর্তন লক্ষণীয় হয়

  • গলগন্ড রোগ দেখা দিবে। 
  • চোখের সমস্যা দেখা বিবে এবং চোখ জ্বালা বৃদ্ধি পাবে। 
  • মেয়েদের ক্ষেত্রে অনিয়মিত মাসিক চক্রের দেখা দিবে। 
  • শরীরের ওজন কমে যাবে। 
  • ঘুমের সমস্যা দেখা দিবে অর্থাৎ অসময়ে ঘুম ভঙ্গ। 
  • কাঁপুনি এবং পেশিতে দুর্বলতা থাকবে। 
  • অকারণে বিরক্তি বেড়ে যাবে এবং নার্ভাস অনুভব করবেন। 

থাইরয়েড টেস্ট খরচ কত

আসলে এই থাইরয়েড টেস্ট খরচ কত সম্পর্কে বলা একটু জটিলতার সৃষ্টি হয়।  কেননা আমাদের দেশে বেশিরভাগই ক্লিনিকে চার্জ বেশি নেওয়া হয়। তবে আমরা সরকারি ভাবে যা টেস্ট খরচ নির্ধারণ করা হয়েছে তা নিয়ে বলার চেষ্টা করবো ।

 দেখুন থাইরয়েড টেস্ট করার সময় ডাক্তাররা বিশেষ করে TSH পরীক্ষা করার জন্যে দিয়ে থাকে। এই TSH  (টি এস এইচ ) পরীক্ষা সরকারিভাবে ৭০০ টাকা বা তার কম টাকা দিয়ে থাইরয়েড টেস্ট করতে পারে। কিন্তু এর সাথে যদি ডাক্তারেরা আপনার রোগ অনুযায়ী T4 পরীক্ষা ও এক সাথে দেয়।
 
তাহলে আরো অতিরিক্ত ৯০০ টাকা বেশি প্রয়োজন হতে পারে। তবে সরকারি হাসপাতাল গুলি ৭০০ টাকা ৯০০ টাকা পর্যন্ত রাখে। কিন্তু বেসরকারি ক্লিনিক বা হাসপাতাল গুলিতে একটু পরিমানে বেশি নিতে পারে ।

থাইরয়েড কমানোর ঘরোয়া উপায়

থাইরয়েড কমানোর উপায় আমরা সহজে ঔষধ সেবনের মাধ্যমে বলার চেষ্টা করিনা। এর কারণ হচ্ছে ঔষধ সেবনের চেয়ে ঘরোয়া খাবারের মাধ্যমে যদি থাইরয়েড কমানোর ঘরোয়া উপায় আমরা জানি তাহলে যেকোন সময় আমরা সেই প্রকারের খাবার খেতে পারি সাবধানতার সহিত । 

থাইরয়েড কমানোর ঘরোয়া উপায় এর মধ্যে খাবারের প্রতি একটু নজর দিলে প্রাকৃতিক ভাবে এবং ঘরোয়া ভাবে আমরা থাইরয়েড বৃদ্ধি পেলে কমাতে পারি। আপনি চাইলে আয়োডিন যুক্ত খাবার খেতে পারেন অথবা আয়োডিনের মত ইলেট্রোলাইট এবং  পুষ্টি রয়েছে সেইসব খাবার খেতে পারেন ।

থাইরয়েড নরমাল কত পয়েন্ট

যা খেলে আপনার থাইরয়েড আপনাআপনি কমে যাবে। সেই রকম খাবার আপনি সামদ্রিক শাকসবজি গুলির মধ্যে পাবেন। যেমন , কেল্প,হিজকি,নরি, কম্বু সি উইড,   এবং আরেম ।

খাদ্যাভ্যসের মাধমে আপনি চাইলে নিজের ক্ষতি পূরণ করতে পারেন ।  এইক্ষেত্রে আপনি দই, পনির এবং দুধ রাখতে পারেন প্রতিদিনের খাবারের সাথে। এতে করে আপনি চাইলে ঘরোয়া ভাবে থাইরয়েড কমাতে পারেন। সিলেনিয়া এবং জিংক সমৃদ্ধ খাবার যুক্ত করতে পারেন । 

থাইরয়েড হলে কি বাচ্চা হয় না 

থাইরয়েড এমন একটি হরমোন জনিত সমস্যা যা গর্ভবতী নারীর জন্যে খুব বিপদজ্জনক। থাইরয়েড হলে কি বাচ্চা হয় এমন প্রশ্নের সম্মুখীন হয়েছেন অনেকে। অনেকে এই ভয়ে থাকেন বিশেষ করে গর্ভবস্থায় ।
 
গর্ভকালীন সময়ে এই হাইপোথাইরয়েডিজম বা থাইরয়েড হলে বাচ্চা হওয়ার সময় অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। এই রোগ হলে বা থাইরয়েডের সমস্যা হলে বিশেষ করে নারীরা আয়োডিনের সমস্যায় ভুগেন। কোন কারণে যদি থাইরয়েড সমস্যা বেশি বা কম হয় তাহলে মেয়েরা বন্ধ্যাত্ব পর্যন্ত হয়ে যাওয়ার সম্ভবনা রয়েছে ।
 
থাইরয়েড হলে বাচ্চা হয় কিন্তু নিজেকে একটু সচেতন হতে হয়। না হলে অপুস্টি হীনতায় ভুগেন । অনেক সময় ক্ষেত্রে বিশেষে গর্ভধারনের ২৪ সপ্তাহ পর বাচ্চা মারাও যায় । তবে মায়ের মধ্যে থাইরয়েড হলে শিশুর স্নায়ুবিক বৃদ্বিতে ব্যাঘাত ঘটতে পারে।

কারন গর্ভস্থ শিশুর মধ্যে মায়ের রক্তের মাধ্যেম সবকিছু প্রবেশ করছেন তাই এই ক্ষেত্রে চিন্তার বিষয় কিছু রয়েই যাই । তবে সচেতনতার মাধ্যমে নিজেকে এই সমস্যা থেকে উত্তরন করতে পারবেন । 

থাইরয়েড কি সম্পুর্ন ভাল হয় 

মানুষের শরীরে থাইরয়েড খুব বেশি পরিমানে যখন বেড়ে যায় বা হাইপারথায়রয়েডিজম হয় এবং থাইরক্সিন একদম নিঃসরণ না হয় বা কমে যায় এবং যাকে হাইপোথায়রয়েডিজম বলে এই দুই ক্ষেত্রে আপনার ঔষধ খেতে হবে দীর্ঘদিন ।

আমাদের দেশে হাইপোথায়রয়েডিজম  কমে যাওয়ার সংখ্যা অনেক বেশি। কারণ আমাদের দেশে আয়োডিন জনিত সমস্যা ভুগে অনেকে। কিন্তু যাদের সামান্য কম বা বেশি তাদেরকে আপনার সারা জীবন ঔষধ খেতে হয় না ।

কিন্তু থাইরয়েডের সমস্যা প্রচন্ড আকারে ধারন করলে তাদের থাইরয়েড সম্পূর্ণ ভাল হয় না। তার মধ্যে হচ্ছে যাদের বেশির ভাগ নারী পুরুষের থাইরক্সিন কোন বিষয়ে কারণে কেটে বাদ দিতে হয় তাদের ক্ষেত্রে থাইরয়েড সম্পূর্ণ ভাল হয় না । 

ছেলেদের তুলনায় মেয়েরা থাইরয়েড আক্রান্ত বেশি হওয়ার কারণ 

এটি ভুল ধারণা যে ছেলেদের তুলনায় থাইরয়েড মেয়েরা বেশি আক্রান্ত হন। নারী পুরুষ উভয়ের মধ্যে এই থাইরয়েডের সমস্যা দেখা যায়। সেটি ভিবিন্ন কারণে দেখা দিতে পারে। যেমন আয়োডিন যুক্ত খাবারের অভাবে। থাইরয়েড গ্রন্থির জন্মগত সমস্যা থাকলেও হয় । 

আবার অনেক সময় দেখা দেয় অন্যান্য গ্রন্থিগুলিও যদি ঠিক মত কাজ না করে তাহলেও আপনার এই থাইরয়েডের সমস্যা দেখা দিতে পারে । তবে ছেলেদের তুলনায় মেয়েরা থাইরয়েড আক্রান্ত বেশি হওয়ার কোন কারণ নেই । 

তবে মেয়েদের থাইরয়েড হওয়ার সম্ভবনা ছেলেদের থেকে একটু বেশি রয়েছে। কেননা মেয়েদের মেনোপজ হলেই এই থাইরয়েডের একটু ঝুঁকি বেড়ে যায়। তবে মেয়েরা বড় হওয়ার সাথে সাথে একটু সচেতন হওয়া  জরুরি ।  

শরীরে থাইরয়েডের সমস্যা কেন হয়

ভিবিন্ন কারনে এই শরীরে থাইরয়েড এর সমস্যা দেখা দিতে পারে । ততমধ্যে যে উপাদান গুলিকে ডাক্তারি ভাষায় বলা হয়েছে, যেমন T4 এবং T3 এই দুইটি উপাদান । 

থাইরয়েড নরমাল কত পয়েন্ট

একটি হচ্ছে থাইরক্সিন বা T4 এবং আরেকটি হচ্ছে ট্রাই-আয়োডোথাইরোনিন বা T3 এই দুইটি উপাদানের সঠিভাবে যদি থাইরয়েড হরমোন উৎপাদন না হয় বা ত্রুটি হয় তাহলে শরীরে থাইরয়েড সমস্যা দেখা দেয় । আরও নানা বিদ কারনে ও এই থাইরয়েড সমস্যা দেখা দিতে পারে ।  

থাইরয়েড গ্রন্থির কি ধরনের সমস্যা হতে পারে

থাইরয়েড গ্রন্থির মধ্যে বিশেষ করে অনেকের অনেক রকম সমস্যার সম্মুখীন হতে হয় । অনেকের আবার জন্মগত ত্রুটি থাকে । অনেকের জন্মের সময় এই থাইরয়েড গ্রন্থি তৈরি হয় না ।

স্বাভাবিক ভাবে আমরা যেভাবে থাইরয়েড গ্রন্থি কার্যকলাপ দেখি, তার মধ্যে প্রধান সমস্যার কারন হচ্ছে থাইরয়েড গ্রন্থি নিজে গ্রন্থি বড় হয়ে যাওয়া । এই থাইরয়েড গ্রন্থি আয়োডিন যুক্ত খাবারের অভাবে ও বড় হয়ে যায় । 

গলগন্ড রোগ নামে আমাদের কাছে পরিচিত । সেই রোগ হয় আয়োডিনের অভাবে । এখন শরীরে আয়োডিনের অভাব হলে শরীর স্বাভাবিক রাখার জন্যে এই থাইরয়েড গ্রন্থি নিজেই চেস্টা করে হরমোন তৈরি করার জন্যে । কিন্তু থাইরয়েড গ্রন্থির এই সমস্যা শুরু হয় হচ্ছে ।

স্বাভাবিক ভাবে যখন আয়োডিনের স্বাভাবিক অভাব পূরন করার জন্যে এই থাইরয়েড গ্রন্থি নিজেই নিজেই ফোলতে থাকে । তখন ধীরে ধীরে এই আয়োডিনের ঘাটতি পুরন করতে এক সময় গিয়ে থাইরয়েড গ্রন্থি অয়োডিন আর তৈরি বা নিস্বরন করতে ব্যর্থ হয় । যাকে হাইপোথাইরয়েডিজম বলে থাকে ।

থাইরয়েড নরমাল কত পয়েন্ট নিয়ে লেখকের শেষ ভাষ্য

থাইরয়েড নরমাল কত পয়েন্ট এবং থাইরয়েড এর আদ্যেপান্ত সব কিছু নিয়ে আমরা ধারনা দেওয়ার চেস্টা করেছি । কারন এই থাইরয়েড সবার মধ্যে রয়েছে । আশা করি আপনাদের উপকারে আসবে থাইরয়েড সম্পর্কিত সমস্ত তথ্য সমূহ । 

তাই নিয়মিত এবং সঠিকভাবে জীবন যাপন করুন, শরীরের বিষয়ে একটু সুনজর দিন এতে আপনি ও সুস্থ থাকবেন । আমাদের সাথে যোগাযোগ রাখবেন আমরা চেস্টা করব এই রকম কিছু জিজ্ঞাসিত টপিক নিয়ে আপানাদের সাথে হাজির হতে । 

প্রায় জিজ্ঞাসিত প্রশ্নাবলী (FAQ)

টি এস এইচ এর মাত্রা কত ?
টি এস এইচ ( TSH ) এর অর্থ হল থাইরয়েড স্টিমুলেটিং হরমোন
টি এস এইচ এর মাত্রা হল স্বাভাবিক ভাবে ০.৪ - ৪.০ mlu/L বা মিলিইউনিট প্রতি লিটারে এবং এর ৪.০  mlu/L এর উপরে হলেও সমস্যার সৃষ্টি হয় আবার ০.৪  mlu/L নিচে হলেও সমস্যার সৃষ্টি হয় ।

থাইরয়েড এর সমস্যা কি প্রত্যেক মানুষের মধ্যে থাকে ?
না প্রত্যেক মানুষের মধ্যে নই যাদের এই থাইরয়েড গ্রন্থি, থাইরয়েড হরমোন তৈরি করতে সমস্যা হয় তাদের মধ্যে থাইরয়েড এর সমস্যা দেখা দেয় । যাদের মধ্যে আয়োডিনের সমস্যা এবং আরও কিছু ভিটামিনের অনুপস্থিতি দেখা যায় তাদের মধ্যে । তবে সবার মধ্যে এই থাইরয়েড গ্রন্থি থাকে ঘাড়ের পাশে সবানভাবে প্রজাপতির ডানার মত । 

থাইরয়েড নরমাল পয়েন্ট থেকে কমে গেলে কি হয় ?
থাইরয়েড নরমাল পয়েন্ট বা নির্দিষ্ট মাত্রা থেকে কমে গেলে তাকে বলে হাইপোথায়রয়েডিজম । এবং এর ফলে নানা রকম উপস্বর্গ দেখা দেয় । ওজন বৃদ্বি পাবে এং অস্বাভাবিক ভাবে ক্লান্তি অনুভব হবে আর নির্দিষ্ট মাত্রা থেকে বা থাইরয়েড নরমাল পয়েন্ট থেকে যদি বেড়ে যায় তার বিপরীত গুলি হয়ে থাকে উপস্বর্গ । বেড়ে গেলে তাকে বলে হাইপারথায়রয়েডিজম । 

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

সবারজন্যে.কম এর নীতিমালা মেনে এ কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ১